মেইন ম্যেনু

অবিরাম বর্ষণে বান্দরবানে বন্যা, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

অবিরাম ভারি বর্ষণে প্রধান সড়কে পানি উঠায় বান্দরবানের সঙ্গে সারাদেশের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

এদিকে আকস্মিক বন্যায় সড়কের বেইলি ব্রিজ ডুবে যাওয়ায় দুদিন ধরে রাঙামাটির সঙ্গে এবং পাহাড় ধসের কারণে রুমা উপজেলার সঙ্গে বান্দরবান জেলার সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং প্রকল্প কর্মকর্তাদের সবধরণের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

মঙ্গলবারও জেলায় থেমে ভারি বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। মৃত্তিকা পানি সংরক্ষণ কেন্দ্র বান্দরবানের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মাহাবুবুল ইসলাম বলেন, মঙ্গলবার সকাল ৯টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় বান্দরবানে ১৪৬ মিলি মিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

আগেরদিন বৃষ্টিপাত হয়েছিল চব্বিশ ঘণ্টায় ২০২ মিলি মিটার। বৃষ্টির পরিমাণ কিছুটা কমেছে। থেকে থেমে বৃষ্টিপাত আরও কয়েকদিন অব্যাহত থাকতে পারে।

গত রোববার ভোররাত থেকে বান্দরবানে টানা বর্ষণ অব্যাহত রয়েছে। বৃষ্টিতে বান্দরবান কেরানীহাট চট্টগ্রাম সড়কের বাজালিয়া, বরদুয়ারা, আমতলী’সহ কয়েকটি স্থানে প্রধান সড়কটি ৪-৫ ফুট পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় বান্দরবানের সঙ্গে চট্টগ্রামসহ সারাদেশের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক মো: আসলাম হোসেন জানান, পাহাড় ধসের অতিঝুকিপূর্ণ অবস্থায় বসবাসকারী পরিবারের সংখ্যা এক হাজার ৪৪৪টি। দ্রুত তাদের নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্রে সরিয়ে নিতে উপজেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং প্রকল্প কর্মকর্তাদের সবধরণের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। জেলার সাত উপজেলায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ২৫টি অস্থায়ী আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানিসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করা হবে। বান্দরবান-কেরানীহাট চট্টগ্রামসহ ৩টি সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে প্রস্তুত রয়েছে প্রশাসন।



মন্তব্য চালু নেই