মেইন ম্যেনু

আবার বেফাঁস ঢাবি প্রক্টর, প্রতিবাদী শিক্ষকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থার ঘোষণা

আবার বেফাঁস উক্তি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর গোলাম রব্বানীর। ‘নিপীড়নবিরোধী শিক্ষার্থীদের’ জমায়েতে গিয়ে ছাত্রলীগের হামলার শিকার শিক্ষকদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

রবিবার ক্যাম্পাসে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় প্রতিক্রিয়া জানতে গেছে প্রক্টর শুরুতে সাংবাদিকদেরকে বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিস্থিতি অশান্ত করার চেষ্টা চলছে। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আন্দোলনকারীদের সঙ্গে বেশ কয়েকজন শিক্ষকও ছিলেন- এমন প্রশ্নের পর গোলাম রব্বানী বলেন, ‘তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এর আগে দুপুর পৌনে একটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিববাড়ি মোড়ে নির্মিতব্য শেখ রাসেল টাওয়ারের সামনে নিপীড়নবিরোধী আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা করে ছাত্রলীগ। এসময় বেশ কয়েকজন শিক্ষককেও লাঞ্ছিত করে।

কোটা সংস্কার আন্দোলনে থাকা সংগঠন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের গ্রেপ্তার নেতাদের মুক্তি এবং মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এই কর্মসূচি দেয়া হয়েছিল। সেখানে যোগ দেন বেশ কয়েকজন শিক্ষকও।

ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা কর্মসূচিতে অংশ নেয়া ছাত্রদেরকে বাধা দেয়। এ সময় সেখানে থাকা বেশ কয়েকজন শিক্ষকের সঙ্গেও তর্ক-বিতর্কে জড়ায় তারা। আঙ্গুল উঁচিয়ে এক শিক্ষকের সঙ্গে বাদানুবাদের ছবি প্রকাশ হয়েছে সামাজিক মাধ্যম এবং গণমাধ্যমে।

এসময় ছাত্রলীগের কর্মীরা শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে উস্কানিমূলক স্লোগান ও বক্তৃতা দেন। এর কিছুক্ষণ পর শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা মিছিল নিয়ে সরে আসতে চাইলে তাদের ওপর হামলা চালায় ছাত্রলীগ কর্মীরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ফাহমিদুল হক বলেন, ‘মানববন্ধনের শেষ পর্যায়ে সরকার দলীয় ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা আমাদের ঘিরে ফেলে। আমরা রাজু ভাস্কর্যের দিকে যাওয়ার পথে শিববাড়ি মোড়ে শেখ রাসেল টাওয়ারের সামনে তারা শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায় এবং আমাদেরকে লাঞ্ছিত করে।’

এর আগেও প্রক্টর বেশ কিছু ঘটনায় বক্তব্য দিয়ে সমালোচিত হয়েছেন। গত ৩০ জুন এবং ২ জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এবং কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতাদের ওপর ছাত্রলীগের হামলার পর প্রক্টর বলেছিলেন, ক্যাম্পাসে কী হচ্ছে, সে বিষয়ে তিনি কিছুই জানে না।

আবার কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা সামাজিক মাধ্যমে তালেবান জঙ্গিদের মতো ভিডিও আপলোড করে প্রাণ দেয়ার মতো আহ্বান জানাচ্ছে বলে সমালোচিত হয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আখতারুজ্জামান। পরে অবশ্য তিনি বক্তব্যের ব্যাখ্যায় বলেছেন, তিনি আন্দোলনকারীদেরকে জঙ্গি বলেননি।



মন্তব্য চালু নেই