মেইন ম্যেনু

আমাকে সরিয়ে দিলে ব্রেক্সিট সহজ হবে না : থেরেসা মে

ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে বলেছেন, তাকে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরিয়ে দিলেই ব্রেক্সিট সহজ হবে না। তিনি তার সমালোচকদের উদ্দেশে একথা বলেছেন।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যেতে গত সপ্তাহের খসড়া চুক্তির বিষয়ে মে বলেন, এটা ছিল একটা জটিল পরিস্থিতি। গত বুধবার খসড়া চুক্তি ঘোষণা করেন মে। এরপরেই ব্রেক্সিট বিষয়ক বেশ কয়েকজন মন্ত্রী পদত্যাগ করেন।

ওই চুক্তি মন্ত্রিসভায় অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

এক ঘোষণায় মে বলেন, আগামী সপ্তাহে ইউরোপীয় নেতাদের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের একটি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর সে কারণে তিনি এ থেকে বিচ্যুত হতে চান না।

২০১৯ সালের ২৯ মার্চের মধ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে যুক্তরাজ্যের। লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন বলেছেন, তার দল বেক্সিট আরও ভালোভাবে সামাল দিতে পারতেন। তারা সময়ের মধ্যেই ব্রেক্সিট নিয়ে মের চেয়ে ভালো চুক্তি করতে সক্ষম হতেন বলেও উল্লেখ করেছেন।

তবে ৫৮৫ পাতার ওই খসড়া চুক্তি নিয়ে বেশ সমালোচনা হচ্ছে। খসড়া চুক্তির প্রতিবাদ করে ব্রেক্সিট মন্ত্রী ডোমিনিক রাব এবং কর্মসংস্থান ও পেনসন মন্ত্রী এস্টার ম্যাকভেসহ মোট চারজন মন্ত্রী পদত্যাগ করেছেন।

পদত্যাগের আগে এক বিবৃতিতে ডোমিনিক রাব বলেন, আমি অত্যন্ত পরিতাপের সঙ্গে বলছি যে, ব্রেক্সিট চুক্তি নিয়ে মন্ত্রী সভার বৈঠকের পর আমার পদত্যাগ করা উচিত। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মের পরিকল্পনা যুক্তরাজ্যের অখণ্ডতার জন্য হুমকিস্বরূপ।

এদিকে, শুক্রবার ব্রেক্সিটবিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন স্টিফেন বার্কলে। তিনি ডোমিনিক রাবের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন। অন্যদিকে, কর্ম ও পেনশনবিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন অ্যাম্বার রাড। তিনি এস্টার ম্যাকভের পদে অধিষ্ঠিত হয়েছেন।

রোববার স্কটিশ মন্ত্রী নিকোলা স্টার্জন নিশ্চিত করেছেন যে, ওই খসড়া চুক্তির বিরুদ্ধে ভোট দেবেন তারা এমপিরা। মে বলেছেন, পরবর্তী সাতদিন যুক্তরাজ্যের ভবিষ্যতের জন্য খুবই জটিল। ব্যাকবেঞ্চ ১৯২২ কমিটির কাছে ৪৮ জন এমপি চিঠি পাঠালেই তার নেতৃত্ব চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে। এ বিষয়ে তিনি বলেন, আমি যতদূর জানি, এটা হবে না। তিনি বলেন, তার নেতৃত্বে চ্যালেঞ্জ ছুড়লে তা আলোচনার জন্য সহজ হয়ে যাবে না।



মন্তব্য চালু নেই