মেইন ম্যেনু

ইব্রাহিমী মসজিদে ছয় মাসে ২৯৪ বার আজানে বাধা ইসরাইলের

ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে অবস্থিত হযরত ইব্রাহিমের (আ.) স্মৃতি বিজড়িত মসজিদে এ বছরই ২৯৪ আজান দিতে বাধা দিয়েছে ইসরাইল।

মঙ্গলবার ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত একটি তথ্যবিবরণী প্রকাশ করে ফিলিস্তিন ওয়াকফ মন্ত্রণালয়। সে তথ্য বিবরণীর বরাতে আনাদলু আরবি এ খবর জানিয়েছে।

ওয়াকফ মন্ত্রণালয়ের ওই তথ্য বিবরণীতে বলা হয়, বিগত ছয় মাসে হযরত ইবরাহিমের (আ.) স্মৃতি বিজড়িত মসজিদটিতে মোট ২৯৪ বার আজান দিতে বাধা দেয় ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ। তাছাড়া বিভিন্ন উৎসব উপলক্ষে টানা কয়েকদিন জোরপূর্বক মসজিদটি বন্ধ রাখা হয়।

ইব্রাহিমী মসজিদে ১৯৯৪ সালে প্রথম হামলা চালিয়েছিল ইসরাইল।

১৯৯৪ সালে চরমপন্থী বাসিন্দা বারুচ গোল্ডেন স্টেইচ ২৯ জন ফিলিস্তিনিকে মসজিদের মধ্যে ইবাদতরত অবস্থায় হত্যা করে। পরে ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ মুসলিম ও ইহুদিদের প্রার্থনার জায়গা আলাদা করে দেয়।

তাছাড়া ইব্রাহিমী মসজিদে কয়েকটি আজানের ক্ষেত্রে বিধি আরোপ করা হয়। তখন থেকে মাগরিবের আজান উচ্চস্বরে দেয়া যায় না। তাছাড়া শুক্রবারে মাগরিব ও এশার আজান এবং রোববারে ইহুদিদের সাপ্তাহিক প্রার্থনার দিনে ফজর, জোহর, আসর ও মাগরিবের আজান দেয়ার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

ইহুদি এবং মুসলিমরা ইব্রাহিমী মসজিদকে সম্মান জানায়। বিশ্বাস করা হয় এখানে নবী ইব্রাহীম (আ.)ও ইয়াকুব (আ.)কে দাফন করা হয়েছে।

মাঝে মধ্যেই ইহুদিদের উৎসব পালন করার জন্য ইব্রাহিমী (স.)মসটিজিদ বন্ধ দেয় ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ।

গত এপ্রিলেও ইহুদিদের হলিডে উপলক্ষে দুদিন মসজিদটি বন্ধে করে দিয়েছিল তারা। এভাবে বিভিন্ন উৎসব উপলক্ষে বছরে ১০ দিন মসজিদটি বন্ধ রাখে ইসরাইল।

হেবরনে ১৬ হাজার ফিলিস্তিনি মুসলমান ও ৪০০ ইহুদি বসতি রয়েছে। ছিটমহলে এ কয়েকজন ইহুদিদের জন্য ১৫০০ ইসরাইলি সেনা মোতায়েন থাকে।



মন্তব্য চালু নেই