মেইন ম্যেনু

ঈদে দাতা সংস্থাদের পাশে পাচ্ছে রোহিঙ্গারা

এবারই প্রথম আশ্রয় শিবিরে ঈদুল ফিতর উদযাপন করছে রোহিঙ্গারা। আর বিশেষ এই দিনে তাদের পাশে থাকছে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট ও আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থাগুলো। আর স্থানীয় তেত্রিশ হাজার পরিবারকে ১০ কোটি টাকার ঈদ সামগ্রী দিচ্ছে সরকার।

মিয়ানমারের রাখাই নির্যাতনের মুখে গত আগস্টে বাংলাদেশে আসে প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা। সবমিলে কক্সবাজার-টেকনাফের আশ্রয় শিবিরে এখন তাদের সংখ্যা দশ লাখের বেশি।

এবারের ঈদ উদযাপনে তাদের পাশে দাঁড়াচ্ছে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিসহ জাতিসংঘের নানা দাতা সংস্থা। সাতটি শিবিরের দুই লাখ ৬০ হাজার রোহিঙ্গাকে ঈদ সামগ্রী দিচ্ছে রেড ক্রিসেন্ট। অন্যান্য দাতা সংস্থার পাশপাশি, এবারই প্রথম সরকারের পক্ষ থেকে স্থানীয়দের জন্যও থাকছে বিশেষ আয়োজন।

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির বাংলাদেশের আবাসিক প্রতিনিধি ক্রিস্টা রাডার জানিয়েছেন, তাদের পক্ষ থেকে ঈদকে সামনে রেখে বিশেষ কোন উদ্যোগ না থাকলেও স্বাভাবিক ত্রাণ বরাদ্দ চলবে আশ্রয় শিবিরে।

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচীর আবাসিক প্রতিনিধি ক্রিস্টা রাডার বলেন, আশা করছি উৎসবমুখর পরিবেশেই রোহিঙ্গারা ঈদ উদযাপন করবে। এজন্য নানা সংস্থা বিশেষ খাবারের আয়োজন করেছে। বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিও, চাহিদা মতো স্বাভাবিক ত্রাণ চাল, ডাল, তেলসহ অন্যান্য নিত্যপণ্য দেবে।

রোহিঙ্গাদের খাদ্য সরবরাহে দাতাগোষ্ঠীর আগ্রহ কমে যাওয়া, তহবিল ঘাটতি দেখা দিয়েছে বলেও আবারও জানান রাডার। এ ঘাটতি পূরণে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে সহায়তাও চেয়েছে জাতিসংঘ।



মন্তব্য চালু নেই