মেইন ম্যেনু

উত্তরা ক্লাব থেকে সাড়ে ৫ হাজার বোতল মদ জব্দ

রাজধানীর অভিজাত ‘উত্তরা ক্লাবে’ অভিযান চালিয়ে অবৈধ ৩ হাজার ৪৫ বোতল ও ২৫শ’ ক্যান বিদেশি বিভিন্ন ব্রান্ডের মদ, হুইস্কি, ওয়াইন, ভোদকা ও বিয়ার জব্দ করে শুল্ক গোয়েন্দারা।

সোমবার (৯ জুলাই) ৫টার দিকে উত্তরা ক্লাবের তালা ভেঙে ভিতরে প্রবেশ করে এ অভিযান শুরু করে শুল্ক গোয়েন্দারা। জব্দ মাদক শুল্ক ফাঁকি দিয়ে বাংলাদেশে আমদানি করা হয়।

শুল্ক গোয়েন্দারা জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযোগ ছিল উত্তরা ক্লাব দীর্ঘদিন ধরে শুল্কমুক্ত সুবিধায় আমদানি করা বিদেশি বিভিন্ন ব্রান্ডের মদ ও মাদকদ্রব্য অবাধে বিক্রয় করে আসছে। এই তথ্যের ভিত্তিতে দুপুর ২টা থেকে উত্তরা ক্লাবে অবস্থান নেয় গোয়েন্দারা।

তবে অভিযানের শুরুতে ক্লাব কর্তৃপক্ষ সহযোগিতা না করায় বিকেল ৫টায় ক্লাবের তালা ভেঙে অভিযান শুরু করা হয়।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) ড. মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালকের নেতৃত্বে র‌্যাব ও আনসার সদস্য সমন্বয়ে গঠিত টিম উত্তরা ক্লাবে তল্লাশি চালিয়ে বিপুল পরিমাণ অবৈধ মাদকদ্রব্য আটক করে। শুল্ক গোয়েন্দা সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে দুপুর পৌনে ২টা থেকে অভিযান পরিচালনা করে।

তিনি আরো জানান, প্রতিষ্ঠানটি সহযোগিতা না করায় বিকেল ৫টার দিকে তালা ভেঙে অভিযান শুরু হয়। অভিযানে উত্তরা ক্লাব থেকে প্রায় ৫ কোটি টাকা মূল্যের ৩ হাজার বোতল বিদেশি বিভিন্ন ব্রান্ডের মদ, হুইস্কি, ওয়াইন, ভোদকা ও বিয়ার উদ্ধার করা হয়। জব্দ করা মাদকের মূল্য প্রায় পাঁচ কোটি টাকা।

উত্তরা ক্লাবের বিরুদ্ধে শুল্ক আইন ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে যাথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের অবৈধ মাদক ও মাদকদ্রব্যের বিরুদ্ধে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান ড. মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম।



মন্তব্য চালু নেই