মেইন ম্যেনু

উল্টো পথে চলায় প্রতিমন্ত্রীর গাড়িসহ অর্ধশত যানবাহনকে জরিমানা

রাজধানীতে উল্টোপথে গাড়ি চালানোয় প্রতিমন্ত্রীসহ কয়েকজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে জরিমানা করেছে পুলিশ। যাদের মধ্যে সচিব পর্যায়ের কর্মকর্তাও রয়েছেন।

রোববার ঢাকার হেয়ার রোডে বিকেল ৪টায় শুরু হওয়া এই অভিযান চলে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত।

ডিএমপি’র দক্ষিণ ট্রাফিক বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন সুগন্ধার সামনে উল্টোপথে গাড়ি চলতে দেখে দাঁড়িয়ে যান দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।

এরপরই পুলিশের উদ্যোগে শুরু হয় উল্টোপথে চলা গাড়ি ও মোটরসাইকেল আটকানো অভিযান। দুই ঘণ্টা ধরে চলা এ অভিযানে মামলা ও জরিমানা করা হয়েছে ৫০টি যানবাহনকে। এর মধ্যে ৪০টিই সরকারি গাড়ি।

অভিযানে উল্টোপথে আসা ৫০টি গাড়িকে জরিমানা করা হয় বলে ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (ট্রাফিক) আশরাফ হোসেন জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, হেয়ার রোডে ভিআইপি গাড়ি বেশি আসে এবং অনেকে উল্টোপথে গাড়ি চালান। আজকের আকস্মিক অভিযানে সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদের গাড়ি উল্টোপথে আসার কারণে আটকে জরিমানা করা হয়। এ সময় উল্টোপথে আসা সচিব, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, রাজউক, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ কর্মকর্তা এবং সাংবাদিকের গাড়ি আটকে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়। তিনটি গাড়িকে ডাম্পিংয়ে পাঠানো হয়েছে।

ট্রাফিক পুলিশের মহানগর দক্ষিণের উপ-কশিনার রিফাত রহমান শামীম অভিযানের সময় উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা (পিআরও) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য জানান, উল্টোপথে সরকারি কর্মকর্তাদের চলাচল যেমন দুদক চেয়ারম্যানকে অবাক করেছে, তেমনি পুলিশি পদক্ষেপে ভীষণ খুশি হয়েছি।

রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন সুগন্ধার সামনে উল্টোপথে চলা গাড়ি আটকে পুলিশ অভিযান পরিচালনা ও জরিমানা করায় ধন্যবাদ জানিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।

তীব্র যানজটের ঢাকা শহরে মন্ত্রী-এমপিসহ প্রভাবশালীদের উল্টোপথে গাড়ি চালানো বন্ধ করতে বিভিন্ন সময় আহ্বান জানিয়ে আসছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

এ বিষয়ে পুলিশের পক্ষ থেকেও বিভিন্ন সময় সতর্ক করা হয়েছে। পরিচয় যাই হোক, কেউ ট্রাফিক আইন ভঙ্গ করে উল্টোপথে গাড়ি নিয়ে গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে গত মাসে এক সংবাদ সম্মেলনে জানান ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।






মন্তব্য চালু নেই