মেইন ম্যেনু

ওজনে কারচুপি : মীনা বাজারকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা

ওজনে কম দেয়ায় রিটেইল চেইন সুপার শপ মীনা বাজারকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর।

মঙ্গলবার (১১ সেপ্টেম্বর) বন্দর নগরী চট্টগ্রামের ষোলশহরে অভিযান চালিয়ে মীনা বাজারকে এ জরিমানা করা হয়।

জানা গেছে, মেয়াদোত্তীর্ণ পচা মাছ-মাংস ও ভেজাল পণ্য বিক্রি, অতিরিক্ত মূল্য আদায়সহ নানাভাবে ক্রেতাদের সঙ্গে প্রতারণা করছে মীনা বাজার। প্রতিষ্ঠানটি এখন বাড়তি মুনাফার লোভে শুঁটকিতেও ওজন কম দিতে শুরু করেছে।

অভিযানের সার্বিক তত্ত্বাবধান করেন অধিদফতরের ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ পরিচালক (উপ সচিব) মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার। অভিযান পরিচালনা করেন অধিদফতরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক বিকাশ চন্দ্র দাস।

মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, বহদ্দারহাটে ষোলশহরে মীনা বাজারে অভিযান চালানো হয়। প্রতিষ্ঠানটিতে বিক্রি করা নিজস্ব বিভিন্ন মসলার প্যাকেটের ওজন কম পাওয়া যায়। তারা ইলিশ মাছের প্রতিটি ৪৫০ গ্রাম শুঁটকির প্যাকেটে ২০-২৫ গ্রাম কম দিচ্ছে। এ ছাড়া পণ্য প্যাকেটজাতের আইনও প্রতিষ্ঠানটি সঠিকভাবে পরিপালন করেনি।

প্রথমিকভাবে ওজনে কম দেয়ার অপরাধে মীনা বাজারকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একই সঙ্গে ভোক্তা আইন যথাযথ পরিপালনের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ভবিষতে এ ধরনের অপরাধ করলে তাদের বিরুদ্ধে দ্বিগুণ জরিমানাসহ আইন অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ছাড়া মাংসের দোকানে মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় বহদ্দারহাট বাজারের সাতটি মাংসের দোকানকে দুই হাজার করে মোট ১৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

জরিমানা করা মাংসের দোকানগুলো হলো- জাহাঙ্গীর মাংসের দোকান, রফিকের মাংসের দোকান, মায়ের দোয়া খাসির মাংসের দোকান, মতিনের মাংসের দোকান, রেজাউলের গোশতের দোকান, আজাদের মাংসের দোকান, ইদ্রিসের গোশতের দোকান। একই সঙ্গে ফ্রিজে বাসি মাংস সংরক্ষণের অপরাধে ষোলশহর এলাকার রেড রোস্টার রেস্টুরেন্টকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।



মন্তব্য চালু নেই