মেইন ম্যেনু

কবর থেকে তোলার পর হেসে উঠলেন মৃত সন্ন্যাসী!

সমাহিত করার দু’মাস পরে ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী কবর থেকে তোলা হয় বৌদ্ধ ভিক্ষু পিয়ান লুয়াংকে। এরপর দেখা যায়, দু’মাসে তার মরদেহ প্রায় অবিকৃত রয়ে গেছে। শুধু তাই নয়, ওই সন্ন্যাসীর মুখে লেগে আছে অবাক করা হাসি। অথচ, দু’মাস আগে তার মৃত্যুর সময় এ হাসি ছিল না বলে জানান তার ভক্তরা।

২০১৭ সালের ১৬ নভেম্বর থাইল্যান্ডের ব্যাংকক শহরের এই বৌদ্ধ ভিক্ষু মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯২ বছর।

থাইল্যান্ডের স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম জানায়, জীবনের সিংহভাগ সময় থাইল্যান্ডের লোপবুরি মঠে অতিবাহিত করেন এই সন্ন্যাসী। আধ্যাত্মিক গুরু হিসেবে তার ব্যাপক খ্যাতি ছিল।

এদিকে, দ্য মিরর-র প্রতিবেদক জানান, দু’মাস পরে সন্ন্যাসীর মরদেহকে ধর্মীয় আচারের জন্য ভক্তদের সামনে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, তখনই তার মুখে সুন্দর সৌজন্যমূলক হাসি ফুটে ওঠে। থাইল্যান্ডের স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম বরাতে জানা গেছে, সন্ন্যাসীর মরদেহকে দেখে মনে হচ্ছিল, মাত্র ৩৬ ঘণ্টা আগে তার মৃত্যু হয়েছে।

সন্ন্যাসীর ভক্তরা বলছেন, বৌদ্ধ তত্ত্ব মতে, সন্ন্যাসী লুয়াং প্রকৃতই নির্বাণ লাভ করেছেন। এই মরদেহের হাসিই তার প্রমাণ। ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী, ১০০ দিন পরে তাকে আবার সমাহিত করা হবে। আর ততদিন চলবে ভক্তদের নিরবচ্ছিন্ন প্রার্থনা।

তথ্যসূত্র: দ্য মিরর






মন্তব্য চালু নেই