মেইন ম্যেনু

কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া ঘাটে জনস্রোত

বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের ঢল নেমেছে দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষের যাতায়াতের প্রধান পথ মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে। ভোরের আলো ফুটতে না ফুটতে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ বাড়তে শুরু করে লঞ্চ, স্পীডবোট এবং ফেরিতে।

আবার অনেক যাত্রীকে দেখা গেছে ঝুঁকি নিয়ে গাড়ির ছাদে করে নিজ নিজ গন্তব্যে যাচ্ছেন।

সরেজমিতে দেখা গেছে, অতিরিক্ত গাড়ির চাপে ঘাট এলাকায় যানজট সৃষ্টি হয়েছে। থেমে থেমে চলছে গাড়ি। পরিস্থিতি মোকাবেলায় ঘাট এলাকায় কাজ করছে জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, ফায়ার সার্ভিস, বিআইডব্লিউটিসি, বিআইডব্লিউটিএসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও সদস্যরা।

মাদারীপুরের শিবচরের কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাটের ট্রাফিক পরিদর্শক উত্তম কুমার শর্মা বলেন, এই নৌরুটে স্বাভাবিক সময়ে ১৭টি ফেরি চললেও ঈদে আরো ৩টি ফেরি যোগ করায় এখন চলছে ২০টি ফেরি। এছাড়া ৮৭টি লঞ্চ ও শতাধিক স্পীডবোট নিয়মিত কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে চলাচল করে।

নৌপথে দুর্ঘটনা রোধে নৌপুলিশ টহল দিচ্ছে বলেও জানানা তিনি।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই