মেইন ম্যেনু

কাতারে বাংলাদেশিদের আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ

আরব বিশ্বের সাত দেশের সঙ্গে দোহার সৃষ্ট সংকটের কারণে কাতারে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের বিশেষ এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

দোহায় নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের বিশেষ ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, কাতার ও উপসাগরীয় অন্যান্য কয়েকটি দেশের মধ্যে উদ্ভূত রাজনৈতিক পরিস্থিতি সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ করছে বাংলাদেশ দূতাবাস। এছাড়া কাতারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রয়েছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, পরিস্থিতির পরিবর্তিত প্রেক্ষাপট পর্যবেক্ষণ ও যথাযথ বিশ্লেষণের মাধ্যমে দূতাবাস বাংলাদেশিদের করণীয় সম্পর্কে দিক নির্দেশনা প্রদান করবে। একই সঙ্গে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে একক কোনো সিদ্ধান্ত না নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে কাতার প্রবাসী বাংলাদেশিদেরকে।

উপসাগরীয় অঞ্চলে সন্ত্রাসবাদকে সমর্থনের অভিযোগ এনে সোমবার কাতারের সঙ্গে সাতটি দেশ তাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্নের ঘোষণা দেয় সৌদি আরব, মিসর, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত, লিবিয়া, ইয়েমেন ও মালদ্বীপ। মুসলিম ব্যাদারহুড, ইসলামিক স্টেট (আইএস), অাল কায়েদাসহ বিভিন্ন জঙ্গি গোষ্ঠীকে কাতারের সহায়তার অভিযোগে দোহার সঙ্গে একযোগে সম্পর্ক ছিন্নের এ ঘোষণা আসে।

কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করা এসব দেশের নাগরিকদের কাতার সফর, সেখানে বসবাস করা বা কাতার হয়ে অন্য কোনো দেশে যাওয়াও নিষিদ্ধ করা হয়েছে বলে রয়টার্স জানিয়েছে। এছাড়া অাকাশসীমা ও সমুদ্রবন্দর ব্যবহারে প্রতিবেশি দেশগুলো কাতারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এর ফলে বাইরের দেশগুলো থেকে কাতারে পণ্য আমদানি বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

এদিকে, মধ্যপ্রাচ্যে কার্যত একঘরে হয়ে পড়া কাতারে শ্রমিক পাঠানো স্থগিত করেছে ফিলিপাইন। গত বছরের এক পরিসংখ্যান বলছে, কাতারে ১ লাখ ৩১ হাজার ফিলিপাইনের শ্রমিক রয়েছে। তবে মোট দুই লাখের বেশি শ্রমিক সেখানে আছে বলেও মনে করেন ফিলিপিনো শ্রমিক নেতা সিলেভেসট্রি বেল্লো।






মন্তব্য চালু নেই