মেইন ম্যেনু

কুকুরের আলুর দোকান!

প্রযুক্তির এই উৎকর্ষতার যুগে মানুষের কাজ কমছে। বলতে গেলে প্রায় সব কাজের ভার এখন যন্ত্রের ওপর। তাইতো অনেক জায়গায় আমরা রোবটের ব্যবহার দেখতে পাই। তবে ভাবা একটু কঠিন মানুষ কিংবা রোবট কিছুই নয় একটা কুকুর দোকান চালাচ্ছে।

সম্প্রতি ইন্টারনেট দুনিয়ায় ভাইরাল হওয়ার এক ভিডিওতে এমনটাই দেখা গেছে। আলুর দোকানের ‘পরিচালক’ ওই কুকুরের বয়স মাত্র তিন বছর। তার নাম কেন কুন। কুকুরটি যে দোকানে বসে আলু বিক্রি করছিল সেটি অবস্থিত জাপানের হোক্কাইডো দ্বীপে।

ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিও যে লাখো মানুষকে সাক্ষী করে রাখল বিরল এই ঘটনার। ভিডিওতে দেখা যায়, আলুর দোকানে দুই পা তুলে সামনের দিকে তাকিয়ে আছে কুকুরটি। বিক্রি করছে আলু। লোকজন সেখান থেকে আলু কিনে দাম দিয়ে চলে যাচ্ছে।

তবে এই দোকানের একটাই সমস্যা। দোকানদার কুকুর হওয়ায় টাকা ফেরত দিতে পারে না। দোকানের পাশে জাপানি হরফে লেখা রয়েছে, ‘আমি কুকুর, তাই টাকা ফেরত দিতে পারব না’। তাইতো ক্রেতারা আলু কেনার নির্দিষ্ট পরিমাণ দামের খুচরা দিয়ে।

জাপানের স্থানীয় এক সংবাদমাধ্যম বলছে, আলুর দোকান চালানো কেনের কাছে কোনও খেলা নয়। কিংবা শখের বসেও কেন এটা করে না। তাকে দোকানে নিয়মিত দেখা যায় আলু বিক্রি করতে। আর কাজ শেষে সন্ধ্যাবেলায় মালিকের সঙ্গে হেঁটে হেঁটে বাড়ি ফেরে।



মন্তব্য চালু নেই