মেইন ম্যেনু

খালেদাকে সিএমএইচে যাওয়ার প্রস্তাব দিচ্ছে সরকার

কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া রোগ পরীক্ষার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে আসতে না চাওয়ায় তাকে বিকল্প প্রস্তাব দিতে যাচ্ছে সরকার। তিনি চাইলে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে এ কথা জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

খালেদা জিয়া বেসরকারি হাসপাতাল ইউনাইটেডে যেতে চাচ্ছেন। আর সরকার গত ৭ এপ্রিলের মতোই নিতে চাইছে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে। কিন্তু বিএনপি প্রধান আসতে চাইছেন না বলে গত তিন দিনেও তাকে আনা যাচ্ছে না। এই পরিস্থিতিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বললেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে সিএমএইচে নেয়ার প্রস্তাব করা হবে। এটা অত্যন্ত সমৃদ্ধ হাসপাতাল। সেখানে সব ধরনের ব্যবস্থা আছে।’

তিনি যদি সেখানেও যেতে না চান, তবে কী হবে, এমন প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‘তাহলে কারাবিধি অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ বিএনপি নেত্রীর চিকিৎসার বিষয়টিতে সরকার যথেষ্ট গুরুত্ব দিচ্ছে বলেও জানান তিনি।

বিএনপির দাবি অনুযায়ী ইউনাইটেড হাসপাতালে নিতে সমস্যা কী- এমন প্রশ্নে কামাল বলেন, ‘আমাদের সিএমএইচ আছে, বঙ্গবন্ধু মেডিকেল আছে, সব কটি সমৃদ্ধ হাসপাতাল, সেখানে কোনো সমস্যা নাই।’

গত ৮ ফেব্রুয়ারি পাঁচ বছরের কারাদণ্ড হওয়ার পর কারাগারে যাওয়া খালেদা জিয়া আগে থেকেই নানা রোগে ভুগছিলেন। আর গত ২৮ মার্চ তার অসুস্থতার খবর জানা যায়।

মার্চের শেষ দিকে বিএনপি তাদের নেত্রীকে বিদেশে পাঠানোর দাবি জানায়। সে সময় আওয়ামী লীগ নেতারা এতে সম্মতি দেন। তখন সরকারের সঙ্গে বিএনপির সমঝোতার গুঞ্জন ছড়ায়। তবে এরপর বিএনপি সিদ্ধান্ত পাল্টে বেসরকারি হাসপাতাল ইউনাইটেডে নেয়ার প্রস্তাব করে।

কিন্তু এপ্রিলের শুরুতে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলেই রোগ পরীক্ষা হয় খালেদা জিয়ার। আর এই পরীক্ষায় গুরুতর কিছু পাওয়া যায়নি বলে জানান চিকিৎসকরা।

এর মধ্যে ৯ জুন কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেন তার চার ব্যক্তিগত চিকিৎসক। তারা এসে দাবি করেন, গত ৫ জুন খালেদা জিয়া পড়ে গিয়েছিলেন এবং সে সময়ের কথা তিনি স্মরণ করতে পারছেন না। আর এতে তারা ধারণা করেন, খালেদা জিয়ার মাইল্ড স্ট্রোক করেছে।

তবে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, চিকিৎসকদের দাবি মিথ্যা। খালেদা জিয়ার ব্লাড সুগার কমে গিয়েছিল আর পরে চকলেট খাওয়ানোর পর তিনি ঠিক হয়ে গেছেন।

গত রবিবারই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছাড়াও আইনমন্ত্রী আনিসুল হক খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে পরীক্ষা নিরীক্ষার কথা বলেন। কিন্তু তিনি আসতে রাজি না হওয়ায় তিন দিনেও আনা যায়নি।

এর অবস্থায় খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার সকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে একটি আবেদন করেন যেখানে তিনি তার বোনকে ইউনাইটেডে নেয়ার অনুরোধ করেন।

খালেদা জিয়াকে সিএমইইচে নিলে আপত্তি আছে কি না, জানতে চাইলে শামীম ইস্কান্দার বলেন, এ বিষয়ে তিনি কিছু বলতে পারবেন না, বিষয়টি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন তার বোন।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘ইউনাইটেড একটি বিশেষায়িত হাসপাতাল। বেগম খালেদা জিয়া সেখানে যেতে চাইছেন। এখানে ভর্তি করতে সরকারের আপত্তি কেন। সরকারকে এই চিকিৎসার টাকা দিতে হবে না।



মন্তব্য চালু নেই