মেইন ম্যেনু

গাঁজার চালান ‘গায়েব’ করলেন এসআই!

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশের এক উপ-পরিদর্শকের (এসআই) বিরুদ্ধে গাঁজার চালান ‘গায়েব’ করার অভিযোগ উঠেছে। গত সোমবার (১ জানুয়ারি) মধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটলেও বৃহস্পতিবার জানাজানি হয়। অভিযুক্ত এসআই মো. মিজানুর রহমান ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় কর্মরত রয়েছেন।

জেলা পুলিশের শীর্ষস্থানীয় এক কর্মকর্তার ঘনিষ্ঠজন হিসেবেও থানায় বেশ প্রভাব রয়েছে তার। ওই কর্মকর্তার মাধ্যমেই গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) থেকে সদর মডেল থানায় পোস্টিং নেন বলেও গুঞ্জন রয়েছে।

সূত্রে জানা গেছে, সদর মডেল থানা পুলিশের কথিত সোর্স আলী ইমাম ওরফে সরলের দেয়া তথ্যমতে গত সোমবার মধ্যরাতে সদর উপজেলার দুবলা-পাইকপাড়া এলাকায় অভিযানে যান এসাই মিজানুর রহমান। ওই অভিযানে ১১০ কেজি গাঁজাসহ দুইজনকে আটক করা হয় বলে সূত্রটি নিশ্চিত করেছে।

তবে অভিযান স্থল থেকেই এসআই মিজানুর রহমান ও সোর্স আলী ইমাম যোগসাজশ করে মোটা অংকের অর্থ নিয়ে আটক দুইজনকে ছেড়ে দেন। পরে তারা উদ্ধারকৃত গাঁজাও গায়েব করেন বলে অভিযোগ ওঠে। বৃহস্পতিবার দিনভর বিষয়টি নিয়ে থানায় কানাঘুষা চলে। তবে এ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত এসআই মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি জেলা পুলিশ।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সম্প্রতি এসআই মিজানুর রহমান ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা থেকে স্বেচ্ছায় অন্যত্র বদলির আবেদন করেন। আবেদন গৃহিত হলে তিনি বদলির আদেশটি ফের ছয় মাসের জন্য স্থগিত করান। জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) থাকাকালীন শীর্ষস্থানীয় এক কর্মকর্তার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়েন মিজানুর রহমান।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে এসআই মিজানুর রহমান বলেন, ‘আমি কিছুই জানি না। আমার বিরুদ্ধে কে বা কারা বানিয়ে বানিয়ে এটি করছে।’

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. রেজাউল কবির বলেন, এমন একটি ঘটনা আমিও শুনেছি। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।



মন্তব্য চালু নেই