মেইন ম্যেনু

গাছে উঠে জীবন্ত ‘সি-গাল’ পাখি ধরে খেল কাঁকড়া! (ভিডিও)

সাগর তীর কিংবা মিঠা পানিতেই কাঁকড়ার বিচরণ দেখে অভ্যস্ত মানুষ। কিন্তু সেই কাঁকড়া যদি গাছে উঠে যায় তাহলে তো অবাক হতেই হয়।

আর সেখানে ওঠে যদি একটি জীবন্ত পাখিকে শিকার করে খেয়ে পেলে তাহলে তো আর কথাই নেই। আশ্চর্যজনক হলেও সত্য এমন ঘটনাও ঘটেছে ভারত মহাসাগরের প্রত্যন্ত ‘চাগোস’ দ্বীপে।

সমুদ্র উপকূলের এই ভয়ংকর কাঁকড়া গাছে উঠে বাসায় ঘুমন্ত একটি সি-গাল পাখিকে ধরে নিচে নামিয়ে মেরে খেয়েছে।

যদিও এর আগে কোকোনাট ক্রাব বা নারিকেল কাঁকড়া বিশ্বের শক্তিশালী কাঁকড়াগুলোর একটি। নারিকেল ভেঙে খাওয়ার বিশেষ দক্ষতা ও গুণ রয়েছে এদের। আশ্চর্য হলেও সত্য, কোকোনাট ক্রাবের নখর সিংহের চোয়ালের মতো শক্তিশালী। সেই শক্তিশালী নখর দিয়ে ধরে পাখিটির ডানা ভেঙে প্রথমে নিচের বালুতে ফেলে দেয়।

কোনোনাট ক্রাব ও সি-গাল পরে কিলার কাঁকড়াটি আহত পাখিটাকে অনুসরণ করে নিচে নামে। পাখিটি তখন ভাঙা ডানা নিয়ে নিদারুণভাবে চিঁ চিঁ করছে।

কাঁকড়াটি নিচে নেমেই পাখিটির অন্য ডানাটিও ভেঙে দেয়। অসহায় অবস্থায় মৃত্যুর সঙ্গে যুদ্ধ করতে থাকা পাখিটিকে তখন আরও পাঁচটি কোকোনাট ক্রাব এসে ঘিরে ধরে এবং টুকরো টুকরো করে ছিঁড়ে মুহূর্তে খেয়ে ফেলে।

আমেরিকার নিউ হ্যাম্পশায়ারের ডারমুথ কলেজের গবেষক মার্ক লাইডার ঘটনাচক্রে এ ঘটনার ভিডিও করতে সক্ষম হন। তিনি কোকোনাট ক্রাবের স্বভাব নিয়ে গবেষণা করছেন এবং এ আশ্চর্যজনক ঘটনার পর আরও গবেষণার প্রয়োজন বলে তিনি জানান।

মাটিতে বসবাসকারী কাঁকড়ার মধ্যে এরাই সবচেয়ে বড় ও ভয়ংকর প্রজাতির। এদের ওজন চার কেজি পর্যন্ত হতে পারে। বড় হয় ১ মিটার পর্যন্ত। ছোট গাছের খোঁড়লে থাকতে এরা পছন্দ করে।






মন্তব্য চালু নেই