মেইন ম্যেনু

গুহা থেকে উদ্ধার থাই কিশোরদের ২ কেজি করে ওজন কমেছে

থাই গুহায় ১৭ দিন আটকা থাকার পর গড়ে দুই কেজি ওজন কমিয়েছে ১২ কিশোর ফুটবল খেলোয়াড় ও তাদের কোচ। দেশটির এক জ্যেষ্ঠ স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বলেন, তবে তারা ভালো আছে। তাদের মধ্যে চাপের কোনো লক্ষণ দেখা যায়নি।

মঙ্গলবার রাতে থাম লুয়াং গুহা থেকে অবশিষ্ট ফুটবলার ও তাদের কোচকে বের করে আনার পর দেশটিতে আনন্দের বন্যা বয়ে যায়। বিশ্ববাসীও স্বস্তির নিঃশ্বাস ছাড়ে।

গুহা থেকে শেষ দলটিকে উদ্ধারের পর তাদের হেলিকপ্টারে উড়িয়ে চিয়াং রাই প্রাচানুকরহ হাসপাতালে নেয়া হয়। উদ্ধার হওয়া বাকি কিশোররাও হাসপাতালটির নিবিড় পর্যবেক্ষণকেন্দ্রে রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে থাইল্যান্ডের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শক থংচাই লের্টউইলাইরতনাপং বলেছেন, আমাদের মূল্যায়ন অনুযায়ী, তারা ভালো অবস্থায় আছে এবং চাপের মধ্যে নেই। গুহার মধ্যেও ওই শিশুদের ভালো যত্ন নেয়া হয়েছিল। অধিকাংশ বালকই গড়ে ২ কেজির মতো ওজন হারিয়েছে।

এদের মধ্যে রোববার প্রথম যে চার কিশোরকে উদ্ধার করা হয়েছিল তাদের বাবা-মা তাদের দেখার সুযোগ পেয়েছেন। কিন্তু পূর্বসতর্কতা হিসেবে তাদের সুরক্ষামূলক পোশাক পরতে হয়েছে এবং সাত ফুট দূর থেকে সন্তানদের দেখতে হয়েছে।

সোমবার উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়া সবাইকে সাফল্যের আনন্দ উদযাপনের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন থাই প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান-ওচা। তিনি বলেন, সব পক্ষের জন্য আমরা ভোজের আয়োজন করব।

থাইল্যান্ডের এই নাটকীয় উদ্ধার অভিযানের সফলতার উল্লাস রাশিয়ার বিশ্বকাপেও অনুরণন তুলেছে। টুইটারে ‘ওয়াইল্ড বোয়ার’দের জন্য শুভ কামনা জানিয়েছেন ফ্রান্স ও ইংল্যান্ড দলের খেলোয়াড়রা।



মন্তব্য চালু নেই