মেইন ম্যেনু

চাকরি দেয়ার কথা বলে প্রতারণার ফাঁদ পেতেছিল তারা

মাগুরা প্রতিনিধি : মাগুরায় ভুয়া বিজ্ঞপ্তি দিয়ে চাকরি দেয়ার কথা বলে অর্থ আদায়ের অভিযোগে দুইজনকে আটক করা হয়েছে। মঙ্গলবার শহরের মসলা গবেষণা এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে তাদেরকে আটক করে সদর থানা পুলিশ।

পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার তথ্য অনুসারে, আটক হওয়া চক্রের মূল হোতা কাজী মাহমুদুল হাসানের বাড়ি নড়াইল পৌরসভার রঘুনাথপুর গ্রামে। আর সহকারী মোস্তাফিজুর রহমানের বাড়ি মাগুরা শহরের পারনান্দুয়ালি গ্রামে। পুলিশ বলছে মাহমুদুল নামে ওই ব্যাক্তি নিজেকে ওরিয়েন্টাল ল্যাবরেটরিজ, এরগন ফার্মাসিটিক্যালস লিমিটেডের জোনাল ম্যানেজার হিসেবে দাবি করেছে। একইসাথে তার নিজ নামে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সাংবাদিক সংস্থা ও বাংলাদেশ পরিবেশ পরিক্রমা মানবাধিকার সাংবাদিক পরিক্রমার দুটি পরিচয় পত্র পাওয়া গেছে। সে এসব পরিচয় ব্যবহার করে প্রতারণা করে আসছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুসারে মঙ্গলবার সাক্ষাৎকার দিতে এসেছিলেন শহরের সাজিয়াড়া গ্রামের ইমান উদ্দিন। তিনি জানিয়েছেন, কদিন আগে বিজ্ঞপ্তি দেখে জীবন বৃত্তান্ত জমা দেই। আজ সাক্ষাৎকার শেষে থানা ম্যানেজার পদে আমাকে যোগ্য হিসেবে গন্য করা হয়। বেতন ১৬ হাজার টাকা। তবে চাকরি পেতে আড়াই হাজার টাকা জমা দিতে হবে জানায় মাহমুদুল নামে ওই ব্যাক্তি। একই ধরণের অভিজ্ঞতার কথা জানান পারনান্দুয়ালি গ্রামের আমজাদ হোসেন। এই ভুক্তভোগী জানান, তিনি ইতিমধ্যে আড়াই হাজার টাকা জমা দিয়েছেন।

সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছেন, শহরের মসলা গবেষণা এলাকায় একমাস আগে একটি বাড়ি ভাড়া নিয়েছিল চক্রটি। বিভিন্ন পদে চাকরির জন্য পঞ্চাশ জনের বেশি আবেদন করেছিলেন। তার মধ্যে অনেকেই টাকা দিয়েছে বলে অভিযোগ পেয়েছি। তবে যে কোম্পানিতে চাকরি দেয়ার কথা বলা হচ্ছে, সেই কোম্পানির ঢাকা অফিসে যোগাযোগ করা হলে তারা জানিয়েছে এ ধরণের লোক নিয়োগের কোন বিজ্ঞপ্তি তারা দেন নি। জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বিভিন্ন কোম্পানির বিপুল পরিমাণ ওষুধসহ নিয়োগ দেয়ার বিভিন্ন কাগজপত্র সহ চক্রটিকে আটক করেছে পুলিশ। এখন তাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।



মন্তব্য চালু নেই