মেইন ম্যেনু

চোখ ধাঁধানো যেসব ফিচার নিয়ে আসছে স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ১০

গ্যালাক্সি ফোল্ড কবে বাজারে ছাড়া হবে তা নিশ্চিত নয়, তাই সবার মনোযোগ এখন স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ১০-এর দিকে। এবছর গ্রীষ্মকালের শেষ দিকে এটা বাজারে ছাড়া হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট ম্যাশেবল ডটকমে এক প্রতিবেদনে বলা হয়, নোট ১০ হচ্ছে গ্যালাক্সি সিরিজের নোট, অতএব এটাতে এস-পেন স্টাইলাস থাকবে। কিন্তু ফোনটির নতুনতম ভার্সনের জন্য নির্মাতারা সম্ভবত আরও বড় বড় পরিকল্পনা করেছেন, যেমন এতে হেডফোনের কোনও জ্যাক থাকবে না।

স্যামসাং সবসময় মোবাইলে তাদের সর্বশেষ উদ্ভাবন প্রদর্শন করতে গ্যালাক্সি নোট বেছে নেয়। গ্যালাক্সি এস ফোনগুলো ‘রেগুলার কাস্টমারদের’ জন্য তৈরি হলেও নোট ফোনগুলো তাদের জন্য যারা মোবাইলে অনেক বেশি কাজ করেন।

নোট ১০-এও এসব কাজের জন্য অনেক বেশি অপশন দেয়া থাকবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আগের বছরগুলোতে স্যামসাং গ্যালাক্সি নোটের নতুন ভার্সন একটিই মডেল মুক্তি দিয়েছে, কিন্তু এবছর নোট ১০-এর একাধিক মডেল বাজারে ছাড়া হবে।

এপ্রিল মাসে ম্যাশেবল জানতে পারে, নোট ১০-এর চারটি ভার্সন বাজারে ছাড়ার পরিকল্পনা করছে স্যামসাং। এসব মডেল এখনও পরিকল্পনার আওতায় থাকলেও, অন্তত দুটি মডেল – নোট ১০ ও নোট ১০ প্রো বাজারে ছাড়া হবে এটা প্রায় নিশ্চিত।

অ্যাপল ও গুগল আগেই তাদের ফোন থেকে হেডফোনের জ্যাক সরিয়ে দিলেও স্যামসাং ওই পথে হাঁটছিল না। কিন্তু সম্ভবত এবার থেকে তাদের ফোনে ৩.৫ মিলিমিটারের জ্যাক থাকছে না। নোট ১০ ফোন থেকেই এই অডিও পোর্ট দেয়া বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে।

অয়ানপ্লাস তাদের ফোনের হেডফোন জ্যাক উঠিয়ে দেয়ার কারণ হিসেবে বলেছে, এটার জায়গায় নতুন নতুন ফিচার যোগ করা যায় ফোনে। হেডফোন জ্যাকের জায়গায় তারা ফিঙ্গারপ্রিন্ট রিডার আর উন্নত স্পিকার লাগিয়েছে।

স্যামসাং সম্ভবত তাদের নোট ১০-এ আগের চেয়ে বড় ব্যাটারি, ৫জি, ও পেরিস্কোপ ক্যামেরা সংযুক্ত করবে। এসবের জন্য ফোনের ভিতরে বেশি জায়গা প্রয়োজন যার জন্য হেডফোন জ্যাক সরিয়ে ফেলা হতে পারে।

হোল পাঞ্চ ক্যামেরা স্যামসাং প্রথম বাজারে আনেনি, কিন্তু তাদের গ্যালাক্সি এস১০ ফোনগুলোর কারণে এটি বিশেষ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। গুজব সত্যি হলে নোট ১০-এও হোল পাঞ্চ ক্যামেরা থাকবে। তবে এস১০-এ হোল পাঞ্চ স্ক্রিনের উপরে ডান দিকে থাকলেও নোট ১০-এ এটা থাকবে উপরের দিকে ঠিক মাঝখানে।

প্রতিটি নতুন গ্যালাক্সি নোটের স্ক্রিন আগের মডেলের স্ক্রিনের চেয়ে বড় ছিল। কিন্তু এবার এটা বদলে যেতে পারে। নোট ৯-এর ৬.৪ ইঞ্চি স্ক্রিনের জায়গায় নোট ১০-এ থাকবে ৬.৩ ইঞ্চি স্ক্রিন। অন্যদিকে নোট ১০ প্রোতে ৬.৭৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে থাকবে বলে শোনা যাচ্ছে। এটাই হবে নোট সিরিজের ফোনে সবচেয়ে বড় ডিসপ্লে।

গ্যালাক্সি এস১০ ফোনগুলোতে স্যামসাং পাগলের মতো ক্যামেরা সংযুক্ত করেছে। এস১০ই ফোনে আছে দুটি কামেরা – একটা প্রধান ক্যামেরা, একটা আল্ট্রা ওয়াইড। এস১০+ ফোনে আছে তিনটি ক্যামেরা -একটা প্রধান ক্যামেরা, একটা আল্ট্রা ওয়াইড, একটা টেলিফটো। এবং, এস১০ ৫জি ফোনে আছে চারটি ক্যামেরা একটা প্রধান ক্যামেরা, একটা আল্ট্রা ওয়াইড, একটা টেলিফটো এবং একটা টাইম অফ ফ্লাইট (টিওএফ) ডেপ্‌থ ক্যামেরা।

একটি সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে ম্যাশেবল জানায়, নোট ১০ ফোনেও এস১০+ ফোনের মতো তিনটি ক্যামেরা থাকবে। নোট ১০ প্রো ফোনে সম্ভবত এস১০ ৫জির মতো চারটি ক্যামেরা থাকবে। ক্যামেরাগুলো পাশাপাশি রাখার বদলে উলম্বভাবে সাজানো হবে।

স্যামসাংয়ের নতুন ফোনের অভ্যন্তরীণ যন্ত্রগুলোও অত্যন্ত শক্তিশালী হবে বলে জানিয়েছে ম্যাশেবল। নোট ১০ ফোনে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৫৫ চিপ বা স্যামসাংয়ের এক্সিনস ৯৮২০ চিপ ব্যবহৃত হবে। সঙ্গে থাকছে ১২জিবি র‍্যাম এবং ৪৫ ওয়াটের দ্রুত গতির তারযুক্ত চার্জার।

নোট ১০ ফোনের মেমোরিও বিশাল হওয়ার কথা। এস১০ ফোনের মতো ১ টেরাবাইট স্টোরেজসহ, মাইক্রোএসডি কার্ড স্লট থাকার কথা এতে। আবার ওয়ারলেস চার্জ দেয়ার সুবিধাও থাকবে এই ফোনে।



মন্তব্য চালু নেই