মেইন ম্যেনু

ছাত্রলীগের এক নেতার রগ কাটলেন আরেক নেতা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে কামরুল ইসলাম মিয়া (২২) নামে ছাত্রলীগের এক নেতার হাতের রগ কেটে দিয়েছেন আরেক নেতা।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার বিজয়নগরের সিঙ্গারবিল বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

কামরুল উপজেলার ছাত্রলীগের উপ-আইনবিষয়ক সম্পাদক। তার রগ কেটে দিয়েছেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আসিফ উদ্দিন মান্না ও তার অনুসারিরা।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আসিফ উদ্দিন মান্নার সঙ্গে কামরুল মিয়ার বিরোধ চলে আসছিল। বুধবার কামরুলের সঙ্গে মান্নার হাতাহাতিও হয়।

এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সিঙ্গারবিল বাজারে কামরুলকে একা পেয়ে মান্না ও তার অনুসারিরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা করে।

এ সময় ধারালো অস্ত্রের কোপে কামরুলের বাম হাতের কব্জির রগ কেটে যায়। পিঠেও গুরুতর জখম হন। তার আর্তচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে মান্নারা পালিয়ে যান।

পরে রক্তাক্ত অবস্থায় কামরুলকে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

জেলা সদর হাসপাতালের চিকিৎসক মো. মাইনুল হক জানান, ধারালো অস্ত্রের আঘাতে কামরুলের হাতের রগ কেটে গেছে। পিঠও গুরুতর জখম হয়েছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢামেকে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদত হোসেন শোভন বলেন, ‘কামরুল ও মান্নার মধ্যকার দ্বন্দ্বে এমন একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে বলে জানতে পেরেছি। মান্নার বিষয়ে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

বিজয়নগর থানার ওসি মো. নবীর হোসেন জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।



মন্তব্য চালু নেই