মেইন ম্যেনু

‘জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় হাইকোর্টের দেয়া রায় সঠিক হয়নি’

রায় ঘোষণার ৫ মাসের মাথায় জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার দণ্ড স্থগিত এবং জামিন চেয়ে আপিল করলেন বেগম জিয়া। তাঁর আইনজীবীরা বলছেন, সাজা বাড়িয়ে হাইকোর্টের দেয়া রায় সঠিক হয়নি। সর্বোচ্চ আদালতে ন্যায়বিচার পাওয়ার প্রত্যাশা তাদের।

এদিকে, বেগম জিয়ার আপিলের বিরুদ্ধে আইনি লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দুদকের আইনজীবীর।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজা বাড়িয়ে গত অক্টোবরে বেগম জিয়াকে ১০ বছর কারাদণ্ড দেন উচ্চ আদালত। এ দণ্ড স্থগিত চেয়ে সর্বোচ্চ আদালতে আপিল করলেন বেগম জিয়া।

প্রায় তিনশ পৃষ্ঠার আপিলে অর্ধ শতাধিক যুক্তিতে বেগম জিয়ার সাজা বাড়ানো যে ঠিক হয়নি তা তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে বলেই জানালেন তার আইনজীবীরা। চাওয়া হয়েছে জামিনও।

বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার কায়সার কামাল বলেন, আনফেয়ার একটা রায় ঘোষণা করা হয়েছে, তা সত্যেও খালেদা জিয়ার সাজা বৃদ্ধি করা হয়েছে। আমরা সাজা বৃদ্ধি স্থগিত চেয়ে আপিল করেছি পাশাপাশি জামিন চেয়েছি।

দুদকের আইনজীবী বলছেন, উচ্চ আদালতের রায়টি সঠিক। চলবে আইনি লড়াই।

দুর্নীতি দমন কমিশন আইনজীবী অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান বলেন, ৫ বছর সাজার ব্যাপারে কোর্ট আপিল খারিজ করে দিয়েছে। খালেদা জিয়ার সাজা বহাল, উনাকে আইনগতভাবে হেনস্থা করা আমাদের কাজ না। আমরা আইনি লড়াই চালিয়ে যাবো।

৩১ মার্চের পর বেগম জিয়ার এ আপিল শুনানি হবে বলে জানিয়েছেন আইনজীবী।



মন্তব্য চালু নেই