মেইন ম্যেনু

জয় বাংলা ধ্বনিতে মুখরিত সোহরাওয়ার্দী উদ্যান

একাত্তরে ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেওয়া ঐতিহাসিক ভাষণকে ইউনেসকোর স্বীকৃতি উদযাপন উপলক্ষে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগ আয়োজিত নাগরিক সমাবেশে সকাল থেকেই জনতার ঢল নেমেছে। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ছাড়া ঢাকার আশপাশের নানা এলাকা থেকে আসতে শুরু করেছেন আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

উৎসবমুখর পরিবেশে এসব মানুষের মুখে ছিল একাত্তরের সেই বিখ্যাত জয় বাংলা স্লোগান। তাদের স্লোগানে সমাবেশস্থল মুখরিত হয়ে ওঠেছে। আজ শনিবার সকাল থেকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও এর আশপাশে অবস্থান করে এমনটাই দেখা গেছে।

দেখা যায়, আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা সুসজ্জিত পোশাকে ছোট ছোট মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলে হাজির হচ্ছেন। প্রতিটি প্রবেশ পথে উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে। আনুষ্ঠানিকভাবে দুপুর ২টায় সমাবেশ শুরু হলেও এরই মধ্যো কানায় কানায় ভরে উঠেছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। সোহরাওয়ার্দী ছাপিয়ে মানুষের ছাপ গিয়ে পড়েছে শাহবাগ, টিএসসি চত্বর, দোয়েল চত্বরেও। মূল মঞ্চে মাইকে অনবরত চলছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ।

সমাবেশস্থলে জড়ো হওয়া মানুষের হাতে লাল-সবুজের পতাকা ও বিভিন্ন সংগঠনের প্রতীকও তুলে ধরতে দেখা যায়।

কেউ বা আবার নিজেদের পছন্দের নেতাদের ছবি সংবলিত ব্যানার-ফেস্টুনও তুলে ধরছেন হাতে। নাগরিক কমিটি আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সভাপতিত্ব করবেন ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।

এদিকে নাগরিক সমাবেশকে ঘিরে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কঠোর অবস্থানে দেখা গেছে। সমাবেশস্থলে প্রবেশ করা ছাড়াও বিভিন্ন জায়গায় সন্দেহভাজনদের দফায় দফায় তল্লাশি করা হচ্ছে। সমাবেশে যোগ দেওয়া যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখার কর্মী আসাদ মিয়া বলেন, অনেকটা উৎসবের আমেজেই সমাবেশে এসেছি। বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ বিশ্ব স্বীকৃতি পেয়েছে। বাঙালি হিসেবে এ নিয়ে আমি গর্বিত। দল মত নির্বিশেষে এ অর্জন সবার।






মন্তব্য চালু নেই