মেইন ম্যেনু

টেকনাফে গুলিতে দুই ‘মাদক কারবারি’ নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে দুইজন নিহত হয়েছেন, যারা মাদক কারবারি বলে দাবি করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীটি। আহত হয়েছেন চার পুলিশ সদস্য।

শুক্রবার ভোরে উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের হাড়িয়াখালী খুরেরমুখ এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন-টেকনাফ সাবরাং ইউনিয়নের সিকদারপাড়া এলাকার সুলতান আহমদ ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২৬) এবং হ্নলী ইউনিয়নের পূর্ব সিকদার পাড়া এলাকার তোফাইল আহমদের ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২৮)। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন উপপরিদর্শক (এসআই) আমির হোসেন, কনেস্টবল মো. মহিউদ্দিন, মেহেদী হাসান ও আ.শুকুর।

পুলিশ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার বিকালে টেকনাফের সাবরাং বাজার ও হ্নীলা বাজারে অভিযান চালিয়ে দুই মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী শুক্রবার ভোরে সাবরাংয়ের খুরেরমুখ সমুদ্র সৈকতে এলাকায় মজুদ রাখা ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধারে যায় পুলিশের একটি দল। এ সময় গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে আটকদের ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। পুলিশও অত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। পরে অন্যরা পালিয়ে গেলেও ঘটনাস্থলে দুইজনের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। বন্দুকযুদ্ধে চার পুলিশ সদস্যও আহত হয়।

টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, নিহত দুই ব্যক্তি তালিকাভুক্ত অস্ত্রধারী ও মাদক কারবারি। এদের মধ্যে সাদ্দামের বিরুদ্ধে সাতটি ও সাবরাং সাদ্দামের বিরুদ্ধে চারটি মামলা রয়েছে। মরদেহ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। আহত পুলিশ সদস্যদের হাসাপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

বন্দুকযুদ্ধের পর ঘটনাস্থল থেকে তিনটি বন্দুক, ৩০ রাউন্ড গুলি ও ২০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।



মন্তব্য চালু নেই