মেইন ম্যেনু

ট্রাম্পের ছেলের মুখে থুতু দিলেন এক নারী!

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ছেলে এরিক ট্রাম্পের মুখে থুতু দিয়েছেন এক রেস্টুরেন্টের নারী কর্মচারী। এ ঘটনায় ওই নারীকে বাধ্যতামূলক ছুটিতে পাঠিয়েছে রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার রাতে এরিক যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয় রাজ্যের শিকাগো শহরের এক অভিজাত রেস্টরেন্টে খেতে গিয়েছিলেন এরিক ট্রাম্প। মূলত এটি ছিল তার ব্যবসাসংক্রান্ত ডিনার। এ সময় ওই রেস্টুরেন্টের এক নারী কর্মী হঠাৎ করেই এরিকের মুখে থুতু ছোড়েন। এ ঘটনায় হতবাক হয়ে যান উপস্থিত সবাই। এরিক বলেন, যে ব্যক্তি এ ধরনের আচরণ করেন, বোঝা যায় তার আবেগ প্রকাশে সমস্যা আছে।

ওই নারী কর্মীর ছুটিতে পাঠিয়ে দেয়া প্রসঙ্গে রেস্তোরাঁ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ‘তিনি কেন এমন অভব্য আচরণ করেছেন আমাদের বোধগম্য নয়। আমরা এখনও ওই কর্মীর সঙ্গে কথা বলতে পারিনি। তবে এরই মধ্যে রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষ ওই নারী কর্মীকে ছুটিতে পাঠিয়েছে।’

কোনো গ্রাহকের সঙ্গেই এমন করা উচিত নয় বলে এ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে রেস্তোরাঁটির মানবসম্পদ বিভাগ।

রয়টার্স জানায়, মঙ্গলবার ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের এক ব্যবসাসংক্রান্ত ভোজে শিকাগোর পশ্চিমে অবস্থিত এক অভিজাত রেস্তোরাঁয় নৈশভোজে অংশ নিয়েছিলেন এরিক ট্রাম্প। ওই ভোজেই খাবার পরিবেশন করতে এসে হুট করেই এরিকের মুখে থুতু ছোড়েন রেস্তোরাঁর ওই নারী কর্মী।

এমন ঘটনায় ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের পক্ষ থেকে কেউ কোনো মন্তব্য করতে রাজি না হলেও এরিক ট্রাম্প বলেছেন, যে এ ধরনের আচরণ করেন, তিনি মানসিক সমস্যায় আক্রান্ত তা বোঝাই যাচ্ছে।

এদিকে ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের বরাত দিয়ে শিকাগো ট্রিবিউন জানিয়েছে, রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষ ওই নারীকে প্রথম কারাগারে পাঠালেও এরিক ট্রাম্প এ ঘটনায় কোনো অভিযোগ না করায় ওই নারীকে পরে ছুটিতে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

এ বিষয়ে শিকাগো পুলিশপ্রধান এক টুইটবার্তায় জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা ও শিকাগো পুলিশ এ ঘটনা পর্যালোচনা করে দেখেছে।



মন্তব্য চালু নেই