মেইন ম্যেনু

ড্রয়ের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমেছে বাংলাদেশ

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে পচেফস্ট্রম টেস্টে ড্রয়ের লক্ষ্য সামনে নিয়ে পঞ্চম দিনে ব্যাটিংয়ে নেমেছে বাংলাদেশ। আগের দিনে ১৬ রানে অপরাজিত ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে মাঠে নেমেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দিনের প্রথম ওভারেই বাউন্ডারি দিয়ে শুরু করেছেন তিনি।

৪২৪ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৪৯ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চতুর্থ দিন শেষ করেছিল টাইগাররা। জিততে হলে আজ আরও ৩৭৫ রান করতে হবে মুশফিকুর রহিমের দলকে। পঞ্চম দিনের উইকেটে আপাতদৃষ্টিতে যেটা প্রায় অসম্ভব।

এই টেস্টে জিততে হলে বিশ্বরেকর্ডই গড়তে হবে বাংলাদেশকে। টেস্ট ইতিহাসে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড, ৪১৮ রানের। ২০০৩ সালে সেন্ট জোন্সে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এই রান তাড়া করে জিতেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বাংলাদেশকে করতে হবে তার চেয়েও ৪ রান বেশি।

বড় লক্ষ্য সামনে রেখে দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের শুরুটা হয়েছিল একেবারে দুঃস্বপ্নের মত। দলের খাতায় কোনো রান না উঠতেই ফিরে যান নির্ভরযোগ্য দুই ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল, মুমিনুল হক। ইমরুল কায়েস আর মুশফিকুর রহিম ৪৯ রানের জুটিতে প্রাথমিক সে বিপর্যয় সামাল দিয়েছিলেন। কিন্তু দারুণ খেলতে থাকা কায়েসও শেষপর্যন্ত ফেরেন ৩২ রান করে।

তামিম আর মুমিনুলের উইকেট দুটি মরনে মরকেল তুলে নিয়েছেন তার বিধ্বংসী প্রথম ওভারেই, যেটি ছিল বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংসেরও প্রথম ওভার। আর ইমরুল আউট হয়েছেন স্পিনার কেশব মহারাজের বলে।

অফ স্ট্যাম্পের কিছুটা বাইরে পড়ে বেরিয়ে যাওয়া বলে খোঁচা দিয়ে নিজের বিপদ ডেকে এনেছেন ওপেনিং এই ব্যাটসম্যান। ব্যাটের কানায় লেগে বল চলে যায় উইকেটের পেছনে কুইন্টন ডি ককের হাতে।

এরপরই বৃষ্টি নামে পচেফস্ট্রমের সেনউইজ পার্ক স্টেডিয়ামে। দীর্ঘক্ষণ বৃষ্টি হওয়ার কারণে দিনের বাকি সময় খেলা হয়নি। চতুর্থ দিনে এভাবে দুইবার বৃষ্টির বাগড়ায় খেলা বন্ধ করতে হয়েছে। পঞ্চম দিনেও এমন কিছু হলে বাংলাদেশের জন্য ব্যাপারটা স্বস্তিরও হতে পারে।

তবে টাইগার ভক্ত-সমর্থকরা নিশ্চয়ই চাইবেন না, বৃষ্টির আশীর্বাদ নিয়ে টেস্টটা ড্র করতে। অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ১৬ রান নিয়ে ব্যাট করছেন। এরপর স্বীকৃত ব্যাটসম্যানের মধ্যে আছেন লিটন দাস, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ আর সাব্বির রহমান। মেহেদী হাসান মিরাজও ব্যাটিংটা খারাপ করেন না। তারা দায়িত্ব নিয়ে খেললে দক্ষিণ আফ্রিকা মাটিতে গর্বের ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারবে বাংলাদেশ।






মন্তব্য চালু নেই