মেইন ম্যেনু

তারুণ্যদীপ্ত কবি আলাউদ্দিন আদরের জন্মদিন আজ

আলাউদ্দিন আদর। দুরন্ত তরুণ কবি। ছোটকাগজের সম্পাদক। প্রবন্ধ লেখায়ও প্রতিশ্রুতিশীল। এ-সময়ের তারুণ্যের কণ্ঠস্বর। তারুণ্যদীপ্ত এই কবি জীবনের ২৬টি বসন্ত পেরিয়ে আজ ২৭ বছরে পদার্পন করলেন। কবির জন্মদিনে আওয়ার নিউজ বিডি পরিবারের পক্ষ থেকে রইলো একরাশ প্রীতি ও শুভেচ্ছা।

১৯৯২ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি সূর্যোদয়ের পূর্বে ফেনী জেলার ফরহাদ নগর ইউনিয়নের সুবলপুরে গ্রামে জন্ম নেয়া এই লেখকের বাবা মুন্সি আব্দুল ওহাব এবং মাতা পাঞ্জাব বিবি। পাঁচ ভাই ও দুই বোনের মাঝে সর্বকনিষ্ঠ কবি। বর্তমানে সে পুর প্রকৌশল বিদ্যায় (উচ্চতর) অধ্যয়নরত।

আলাউদ্দিন আদর সাহিত্যচর্চা করছে অনেক দিন ধরে। সাহিত্যের মাঠে নিজেকে কৃষক পরিচয় দিয়ে থাকে। সাহিত্যের দিগন্তে কবির উড়াল শিখে এখন সে উড়ন্ত পাখির ভূমিকায় সঞ্চরণশীল। কবি হিসেবে আদর নতুন হলেও ইতোমধ্যে প্রতিশ্রুতির স্বাক্ষর রেখেছে। অত্যন্ত আনন্দের খবর হচ্ছে আদরের এটিই প্রথম গবেষণাধর্মী মৌলিক রচনা। প্রিয় বাংলা পাণ্ডুলিপি পুরস্কার ২০১৮’র প্রবন্ধ বিভাগে এটি পুরস্কার প্রাপ্ত পাণ্ডুলিপি হিসেবে ঘোষিত হয়েছে। আদরের প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘নিবন্ধীত নারী’ ইতোমধ্যে পাঠক মহলে বেশ সাড়া পেলেছে।

গত বছর রমজানে আলাউদ্দিন আদর আত্ম প্রকাশ করে গীতিকবি হিসেবে। আদরের কথায়, হাবিব মোস্তফা সুরে, আবিদ আজমের কণ্ঠে “খুশির চাঁদ” শিরোনামের গানটি সারাদেশে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে।

তিনি বছর খানেক কাজ করেছেন দেশের শীর্ষস্থানীয় একটি জাতীয় দৈনিকের সাহিত্য পাতায়। গত কয়েক বছর যাবত নিয়মিত একুশে বইমেলা উপলক্ষ্যে দেশের বিশিষ্টজনদের সাক্ষাত্কার গ্রহন করছেন দৈনিক নয়াদিগন্তের সাহিত্য পাতায়।

সব কিছু ব্যতিরেকে নিজেকে একজন অতি সাধারণ মানুষ ভাবতে পছন্দ করেন পরিচিত ও পাঠকমহলে ব্যপক জনপ্রিয় এই বিনয়ী কবি। ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত সমাজ গড়ার স্বপ্নে কাজ করেছেন সোস্যাল ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন, পথের ফুল, হাঙ্গার ফ্রি ওয়ার্ল্ডসহ বেশ কয়েকটি দেশী ও আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনে।

আলাউদ্দিন আদর সম্পাদিত ‘সময়ের জানালা’ লেখক-পাঠকের মনোযোগ কেড়েছে। অনলাইন একটিভিস্ট ও সমাজসেবা কর্মী হিসেবেও আদরের সুনাম ও পরিচিত আছে।

সাহিত্যাঙ্গনে সত্য ও সুন্দরের কবি নামে পরিচিত কবি আলাউদ্দিন আদরের এবারের নিবেদন স্বল্পদৈর্ঘ্যরে কবিতার বই “এক টুকরো হৃদয়”। কাব্যগ্রন্থটি পাঠকমহলে ব্যাপক সাড়া জাগাবে বলেই অনেক পাঠক দারুণভাবে আশাবাদী।

২০১৮ একুশে বইমেলায় প্রকাশিত ‘সাহিত্যে নোবেল : ভেতর বাহির’ এই লেখকের ক্লান্তিহীন প্রয়াসেরই দৃষ্টান্ত। বিশ্ব সাহিত্যের সাথে যুক্ত ও সাহিত্যে সর্বোচ্চ পুরস্কার নোবেল প্রাইজ নিয়ে আদ্যপান্ত তথ্যাদি, ভিতর-বাহিরের কথা, নোবেল প্রাপ্ত সাহিত্যিকদের সাহিত্যকর্ম ইত্যাদি নিয়ে বেশ সমৃদ্ধ একটি গ্রন্থ। পাঠক সমাজে বইটি ব্যাপক সমাদৃত হয়েছে। এছাড়াও রয়েছে সাহিত্য কর্মের স্বীকৃতি স্বরূপ- SEL ২১শে বইমেলা বুলেটিন ২০১৬ “লেখক সম্মাননা” স্মারক। মাসিক পথিক কর্তৃক ‘পথিক লেখক সম্মাননা-২০১৬’। নানামুখী প্রতিভাবান এই তরুণের ঝুলিতে রয়েছে ঢাকা থেকে প্রকাশিত নয়াচাবুক নামক কার্টুন পত্রিকার আইডিয়া কার্টুন প্রতিযোগীতায় তিন বার দেশসেরা কার্টুনিস্টের পুরস্কার।


 



মন্তব্য চালু নেই