মেইন ম্যেনু

তিন জেলায় গুলিতে নিহত ৩

ঝিনাইদহ, চুয়াডাঙ্গা ও কক্সবাজারে গুলিবিদ্ধ হয়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। বাকি দুই জেলায় এ হত্যাকাণ্ডের কারণ জানা না গেলেও কক্সবাজারে বিজিবির সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তিনি মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন বলে জানা গেছে। বৃহস্পতিবার সকালে এসব খবর পাওয়া গেছে।

ঝিনাইদহের মহেশপুরে অজ্ঞাত এক যুবকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের বকোনডিয়া গ্রামের মাঠ থেকে হাত বাঁধা অবস্থায় অজ্ঞাত মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

মহেশপুর থানা পুলিশের ওসি রাশিদুল আলম বলেন, সকালে উপজেলার বকোনডিয়া গ্রামের মাঠে মরদেহটি পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সেটি উদ্ধার করে। নিহতের মাথায় গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে। তবে তার পরিচয় এখনও জানা যায়নি।

এদিকে চুয়াডাঙ্গার জীবননগরের উথলী গ্রাম থেকে ইমরান (২৬) নামে এক যুবকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে। ইমরানের মাথায় এবং বুকে গুলির চিহ্ন রয়েছে।

জানা গেছে, ইমরান আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সর্দার। তার বিরুদ্ধে আলমডাঙ্গা, দামুড়হুদা ও মিরপুর থানায় ডাকাতি, ছিনতায়, ধর্ষণ ও চুরিসহ প্রায় দু’ডজন মামলা রয়েছে।

এছাড়া কক্সবাজারের টেকনাফে বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ অজ্ঞাত এক ইয়াবা কারবারি নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার ভোরে টেকনাফ সদরের খানকার ডেইল মেহেদী লবণ প্রজেক্ট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ৭ হাজার পিস ইয়াবা ও দুটি ধারালো কিরিচ জব্দ করেছে বিজিবি।



মন্তব্য চালু নেই