মেইন ম্যেনু

‘দেশগ্রাম অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন কবি আবিদ আজম

সুপরিচিত তরুণ লেখক, সাংবাদিক ও উপস্থাপক আবিদ আজমকে ‘দেশগ্রাম অ্যাওয়ার্ড-২০১৯’ এবং সম্মাননা সনদ প্রদান করা হয়েছে।

শনিবার রাজধানীর বাংলাদেশ ফটোজার্নালিস্ট এসোসিয়েশন মিলনায়তনে সাপ্তাহিক দেশগ্রাম আয়োজিত ইফতার মাহফিল পূর্ব-অনুষ্ঠানে আবিদ আজমের হাতে এ পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।

সাপ্তাহিক দেশগ্রামের সম্পাদক ও প্রকাশক এবং বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল মাহদীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন- আইনজীবী ও সংবিধান বিশেষজ্ঞ এবং জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ্ব শেখ মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম।

প্রধান আলোচক ছিলেন- প্রখ্যাত সংগীতজ্ঞ, জ্ঞানতাপস, সাহিত্যিক ও গবেষক এবং পরিশীলীত কন্ঠস্বর প্রাকৃতজ শামিমরুমি টিটন।

অনুষ্ঠানে তাফসীর পেশ করেন- আলহাজ্ব মাওলানা ক্বারী খন্দকার মুহাম্মদ শহীদুল হক।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- কবি ও কলামিষ্ট সৈয়দ নাজমুল আহসান, আসক নেতা একে সেলিম ভূঁইয়া, সংগঠক মাইস মন, নূর হজ্ব কাফেলার পরিচালক আলহাজ্ব সাঈদ আহমেদ খান।

এ বছর থেকে দেশগ্রাম অ্যাওয়ার্ড প্রদান শুরু হলো। প্রতি বছর গুণি ও কৃতি ব্যক্তিদের হাতে এ অ্যাওয়ার্ড তুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন দেশগ্রাম কর্তৃপক্ষ।

আবিদ আজম সম্পাদিত ‘মুক্তিযুদ্ধের সেরা কিশোর গল্প’ বইয়ের জন্য তিনি দেশগ্রাম অ্যাওয়ার্ডটি পেয়েছেন।

বিজয়ের ৪৮ বছরে দেশসেরা ৪৮ লেখকের মুক্তিযুদ্ধের গল্প নিয়ে এবছর বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে ‘মুক্তিযুদ্ধের সেরা কিশোর গল্প’। বইটি প্রকাশের পর বেশ সাড়া জাগিয়েছিল পাঠকমহলে।

উল্লেখ্য, সম্প্রচার সাংবাদিকতায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ ‘বিবিএফ-ইয়ূথ ইনোভেশন এ্যাওয়ার্ড-২০১৮ ছাড়াও তাঁর ঝুঁলিতে রয়েছে, লাটাই ছড়া পুরস্কার,সাহিত্য প্রণোদনা পুরস্কার, ষ্টার ভয়েজ সম্মাননা, খেলাঘর সম্মাননা, প্রথম আলো কৃতি ছাত্র সংবর্ধনা ইত্যাদী।

সুপরিচিত তরুণ লেখক, সাংবাদিক ও উপস্থাপক আবিদ আজম প্রেস ইনষ্টিটিউট বাংলাদেশ থেকে ট্রেনিং গ্রহণ শেষে আন্তর্জাতিক সংস্থা সেভ দ্যা চিলড্রেন অষ্ট্রেলিয়ার শিশু সাংবাদিকদের মুখপত্র ‘শিশুকন্ঠে’র সম্পাদক হিসেবে সাংবাদিকতা শুরু করেন প্রথম দশকের শুরুর দিকে।

আবিদ আজমের প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে- আমাদের ক্লাসে একটা পরী আছে, খসড়া ছড়ার পসরা, বইখেকো ভূত, একটা ছড়া লুকিয়ে আছে মায়ের আচঁল তলে ও ভূত ডট কম উল্লেখযোগ্য।

সাপ্তাহিক বৈচিত্রের সাবেক এই সহযোগী সম্পাদক যুক্ত ছিলেন দৈনিক ইত্তেফাক, আনন্দ আলো ও ভোরের কাগজের মতো শীর্ষ পত্রিকাগুলোতে। সেভ দ্যা চিলড্রেন অষ্ট্রেলিয়ার একটি প্রোজেক্টে পাঁচ বছর কাজ করেছেন আবিদ। এরপর দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশ’র সহ-সম্পাদক হিসেবে শিশু কিশোর বিভাগ ‌কলরব সম্পাদনা করেছেন দু’বছর। এরপর ২০১৪ সাল থেকে অদ্যবধি যুক্ত আছেন দেশের প্রথম বেসরকারী রেডিও ষ্টেশন রেডিও টুডে’র বার্তা বিভাগে। সেখানে স্পেশাল সব প্রতিবেদন,সংবাদ উপস্থাপনা ও সেলিব্রেটি নিউজে প্রতিনিয়ত ধ্বনিত হয় তাঁর কন্ঠস্বর। আবিদ আজম ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন ও সাব এডিটর কাউন্সিলের সদস্য। এছাড়া আল মাহমুদ ফাউন্ডেশনেরও মহাসচিব তিনি।



মন্তব্য চালু নেই