মেইন ম্যেনু

‘দেশে ফিরে প্রধান বিচারপতির দায়িত্ব পালন সম্ভব না’

প্রধান বিচারপতির ছুটি থেকে দেশে ফিরে আবার দায়িত্ব পালন সুদূর পরাহত বলে মন্তব্য করেছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। শনিবার সন্ধ্যায় তার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন রাষ্ট্রের এই প্রধান আইন কর্মকর্তা।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘এখন যদি অন্যান্য বিচারপতিগণ প্রধান বিচারপতির সঙ্গে বসতে না চান, তাহলে সম্পূর্ণ অচলাবস্থার সৃষ্টি হবে। অচলাবস্থায় তো আর দেশ চলতে পারে না। বাস্তবভাবে অন্যান্য বিচারপতি যদি প্রধান বিচারপতির সঙ্গে বসতে অনীহা প্রকাশ করেন তাহলে তো বিচার কাজ হবে না। সুতরাং বাস্তব অবস্থা বিচার করলে, এই পরিপ্রেক্ষিতে উনার ফিরে এসে দায়িত্বে বসা সুদূর পরাহত বলে আমার মনে হয়।’

ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির বিষয়ে তিনি বলেন, ‘প্রধান বিচারপতি যাওয়ার সময় যে বলে গেছেন “ভারপ্রাপ্ত বিচারপতি শুধু রুটিন কাজগুলো করবেন, অন্য কাজ করবেন না” এটা ঠিক না। ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি সংবিধানের ৯৭ ধারা মোতাবেক নীতিগত, বিচারিক, বেঞ্চগঠনসহ সব ধরনের কাজ করতে পারবেন।

ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি প্রধান বিচারপতির কক্ষে বসবেন কি না এবং প্রধান বিচারপতির বাসভবন ব্যাবহার করবেন কি না এটা তার ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। তবে সংবিধানের ৯৭ ধারা মোতাবেক এসব ব্যবহারে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির আইনগত কোনো সমস্যা নেই।’
প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে আনা ১১ অভিযোগের সত্যতার ব্যাপারে নিশ্চিত না হলে এমন অভিযোগ আনা সম্ভব হতো না। এতে সরকারের কোনো হাত নেই বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে আনা ১১ অভিযোগের সত্যতা আছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘নিশ্চিত না হলে তো এমন কথা উনারা বলতে না।’ ১১ অভিযোগ কী, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রপতি এ ব্যাপারে ভালো বলতে পারবেন।’

প্রধান বিচারপতির ছুটি নিয়ে যারা ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছিলেন, সুপ্রিম কোর্টের বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে সবকিছুর পরিসমাপ্তি হয়েছে বলে তিনি মনে করেন।

শুক্রবার রাতে অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশ্যে দেশত্যাগ করেন প্রধান বিচারপতি। যাওয়ার সময় তিনি গণমাধ্যমের হাতে তার লিখিত বিবৃতি তুলে দিয়ে যান। এর পরের দিন শনিবার প্রধান বিচারপতির দেওয়া বিবৃতির প্রেক্ষিতে আবার বিবৃতি প্রকাশ করেন সুপ্রিম কোর্ট।






মন্তব্য চালু নেই