মেইন ম্যেনু

ধর্মকে রাজনীতির হাতিয়ার বানিয়েছে বিজেপি : মমতা

পশ্চিমবঙ্গের দার্জিলিংয়ে শনিবার দলের প্রার্থী অমর সিং রাইয়ের পক্ষে প্রচারণায় যোগ দেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। জনসভায় তিনি বলেন, ধর্মকে রাজনীতির হাতিয়ার বানিয়েছে বিজেপি। ধর্ম ব্যবহার করে তারা জনগণকে বিভ্রান্ত করে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিল চেষ্টা করছে।

হিন্দু ধর্মের অন্যতম আচার-অনুষ্ঠান ‘রাম নবমী’ উপলক্ষে রাজ্যজুড়ে বিজেপির সশস্ত্র র‌্যালি-সমাবেশেরও সমালোচনা করেন তিনি। অভিযোগ তোলেন, অস্ত্রের মহড়া করে বাংলার শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নষ্ট করছে তারা।

একই দিন শিলিগুড়ির বাঘাযতীন পার্কের সভা থেকে মমতা বলেন, ‘রামনবমীতে গদা, তলোয়ার ধরে বাংলায় ভোটে জিততে পারবেন না। মনে রাখবেন, এটা বাংলা। বাংলার মানুষ এসব দেখে ভোট দেয় না।’

উত্তরপ্রদেশ ও মহারাষ্ট্রের পর ভারতের তৃতীয় বৃহত্তম রাজ্য পশ্চিমবঙ্গ। লোকসভা নির্বাচনে এখানে ৪২টি আসন রয়েছে। গতবার বেশির ভাগ আসন জেতে মমতার তৃণমূল কংগ্রেস। এবার সব আসনেই প্রার্থী দিয়েছে বিজেপি।

তৃণমূলের বিপক্ষে দলটির রাজনৈতিক অস্ত্র প্রধানত কট্টর হিন্দুত্ববাদ ও এনআরসি তথা নাগরিক তালিকা প্রণয়নের প্রতিশ্রুতি। মমতা বলেন, বিজেপি নতুন ধর্মের আমদানি করেছে, হিংসা ধর্ম। কিন্তু ‘ধর্ম মানে মানবিকতা’। নরেন্দ্র মোদিকে চ্যালেঞ্জের সুরে বলেন, ‘রাজনৈতিকভাবে ভোট চান। সেনা-ধর্ম এসব দিয়ে ভোট চান, লজ্জা করে না?’

বিজেপিকে সৃষ্টিছাড়া বলে উল্লেখ করে বলেন, ‘এই রাজ্যে এখন ঘুরতে এসে ভোট চাইছেন। আমি যা কাজ করেছি, মানুষ তার ভিত্তিতেই ভোট দেবে। আর আপনারা ধর্মের ভিত্তিতে ভোটে জিততে চাইছেন, পারবেন তো! ধর্ম বেচে খাওয়ার ফল বুঝতে পারবেন।’

এদিন তিনি আরও বলেন, ‘এদের ভেতরে কালো, সামনে গেরুয়া। এদের বিশ্বাস করবেন তাহলে ভুগবেন।’ উপস্থিত জনতার উদ্দেশে মমতা বলেন, ‘ভোট তাকে দিয়ে নষ্ট করবেন না।’



মন্তব্য চালু নেই