মেইন ম্যেনু

নিউজিল্যান্ডের সেই মসজিদে ছিলেন বিএনপির সাবেক এমপির পুত্র!

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদে ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী হামলায় অলৌকিকভাবে প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন কিশোরগঞ্জের ওমর জাহিদ মাসুম (৩৪)।

বন্ধু-স্বজন ও সহপাঠীদের সঙ্গে জুমার নামাজ আদায় করতে গিয়ে তিনি সন্ত্রাসী হামলার মুখে পড়েন। এ সময় একটি গুলি তার পেটের মাংশ স্পর্শ করে চলে গেলে তিনি মৃত্যুর ভান করে অন্যান্য গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত মুসল্লিদের রক্তাক্ত লাশের স্তূপের আড়ালে সটান পড়ে থাকেন।

দীর্ঘ সময় নির্জীব থাকার পর এক পর্যায়ে পুলিশ এসে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেয় তার।

একইদিন রাতে সুস্থ হয়ে বাসায় ফেরেন কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার মুমুরদিয়া ইউনিয়নের ধনকীপাড়া গ্রামের বিএনপির প্রয়াত এমপি হাবিবুর রহমান দয়াল ও মমতাজ বেগম দম্পতির কনিষ্ট পুত্র ওমর জাহিদ মাসুম।

মাসুমের বড় ভাই অ্যাডভোকেট ওমর জাকির বাবুল ও ভগ্নিপতি সানাউল্লাহ জানান, চিকিৎসা শেষে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরলেও সন্ত্রাসী হামলার সেই ভয়ঙ্কর ও বিভীষিকাময় দুঃসহ স্মৃতি এখনও তাড়া করে বেড়াচ্ছে মাসুমকে।

আত্মীয়-স্বজনদের কাছে বর্বরোচিত ও নৃশংসতম হত্যাযজ্ঞের বর্ণনা দিতে গিয়েও বারবার আঁৎকে ওঠছেন।

মুসল্লিদের লাশের মিছিল যেনো দেয়াল তৈরি করে তাকে প্রাণে বাঁচিয়ে দিয়েছে।

চার ভাই এবং তিন বোনের মধ্যে সবার ছোট মাসুম নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে আসায় স্বজনরা শুকরিয়া আদায় করছেন, করছেন মিলাদ মাহফিলের আয়োজন।

জানা গেছে, মিরপুর বাংলা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে তথ্য প্রযুক্তি (আইটি) তে উ”চতর ডিগ্রি লাভের উদ্দেশ্যে ২০১৫ সালের ২৯ অক্টোবর স্টুডেন্ট ভিশায় নিউজিল্যান্ডের উদ্দেশ্যে দেশ ত্যাগ করে ওমর জাহিদ মাসুম। পড়াশোনা শেষ করে সেখানকার একটি সুপার শপ এবং একটি পেট্রল পাম্পের ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব পান তিনি।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদ থেকে ৩ কিলোমিটার দূরবর্তী স্থানে সস্ত্রীক বসবাস করেন মাসুম।

মাসুমের স্বজনরা জানায়, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ এলাকায় কিশোরগঞ্জ জেলার অনেক মানুষ বসবাস করছেন। তারা প্রতি শুক্রবার জুমার নামাজ আদায় উপলক্ষে তারা আল নূর মসজিদে মিলিত হয়ে থাকেন।



মন্তব্য চালু নেই