মেইন ম্যেনু

নোয়াখালীর সূবর্ণচরে পলাতক আসামী গ্রেফতারের পর ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা, পুলিশের দৃঢ়তায় কারাগারে

এইচ.এম আয়াত উল্যা, নোয়াখালী প্রতিনিধি : নোয়াখালীর সূবর্ণচর উপজেলায় নাশকতা মামলা সহ একাধিক মামলার আসামী মোহাম্মদ হোসেনকে (৩৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারের পর আসামী মোহাম্মদ হোসেনকে তার ছোট ভাই আক্তার হোসেন সন্ত্রাসীধদের নিয়ে দুই বাব ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করলেও চরজব্বার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইকবালের নেতৃত্বে পুলিশের দৃঢ়তায় তাকে থানায় নিয়ে আসা হয়। দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী মোহাম্মদ হোসেনকে গ্রেফতারের খবরে স্থানীয় এলাকায় মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছে। রোববার বিকেলে আসামী মোহাম্মদ হোসেনকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। এরআগে, শনিবার দিনগত গভীর রাতে উপজেলার আলাউদ্দিন বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত মোহাম্মদ হোসেন সূবর্ণচর উপজেলার ৮নং মোহাম্মদ ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের চরতোরাব আলী গ্রামের আবদুল লতিফ মুন্সি বাড়ীর মৃত ছিদ্দিক আহাম্মদের ছেলে। তার বিরুদ্ধে চরজব্বার থানা নাশকতা সহ একাধিক মামলা রয়েছে। পুৃলিশ সূত্র জানায়, সন্ত্রাসী ও একটি রাজনৈতিক দলের সশস্ত্র ক্যাডার মোহাম্মদ হোসেন বিভিন্ন সময় সূবর্ণর উপজেলায় নাশকতা সহ বিভিন্ন অপকর্ম করে আসছিলো। এরমধ্যে সে গত বছরের ২৯ জুন বিকেলে বিএনপির একটি কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে হোসেন সহযোগী সন্ত্রাসীদের নিয়ে যানবাহন ভাংচুর করে এবং সাধারণ লোকজনকে পিটিয়ে আহত করে। একই দিন রাতে একই উপজেলার আবদুলাহ মিয়ার হাট বাজার যাত্রী ছাউনি সংলগ্ন রাস্তার পশ্চিম পাশের রাস্তার উপর বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্যের পথসভাকে কেন্দ্র করে সাধারণ লোকজনের উপর হামলা চালিয়ে লাঠি ও হকিষ্টিক দিয়ে বেদম পিটিয়ে আহত করে। এসব ঘটনায় সন্ত্রাসী মোহাম্মদ হোসেন ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে চরজব্বার থানায় একাধিক মামলা দায়ের করা হয়। এরপর থেকে আসামী মোহাম্মদ হোসেন দীর্ঘদিন পলাতক ছিলো। শনিবার রাতে পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তার অবস্থান জানতে পারে। পরে রাতেই চরজব্বার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইকবালের নেতৃত্বে পুলিশ তাকে স্থানীয় আলাউদ্দিন বাজার থেকে গ্রেফতার করে। থানায় নিয়ে আসার পথে আসামীর ছোট ভাই আক্তার হোসেন সন্ত্রাসীদের নিয়ে তাকে প্রথমে আক্তার মিয়ার হাট টৌরাস্তা থেকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। পরবর্তীতে করিম বাজারের পূর্ব পাশের এলাকা থেকেও দ্বিতীয়বার আসামীকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু এসআই ইকবাল ও পুলিশ সদস্যদের দৃঢ়তায় আসামীকে থানায় নিয়ে আসা হয়। চরজব্বার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইকবাল আসামী গ্রেফতার ও কারাগারে প্রেরণের বিষয়টি নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান, আমি চরচব্বার থানায় স¤প্রতি যোগদান করেছি। এর আগে সুধারাম মডেল থানায় ছিলাম। আমি কোনো সময়ে দাগি মাদক, চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসী আসামীদের ছাড় দিইনি। আগামীতেও দেবোনা। এর ধারাবাহিকতা সূবর্ণচরের দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী মোহাম্মদ হোসেনকে গ্রেফতার করে কারাগারে পিছিয়েছি। আগামীতে এই থানার অধীনে মাদক, চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত সকল সন্ত্রাসীদের ধরতে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে। কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা বলেও তিনি হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন।



মন্তব্য চালু নেই