মেইন ম্যেনু

পরিচ্ছন্নতায় ঢাকার বিশ্বরেকর্ড বঙ্গবন্ধুর নামে উৎসর্গ

ঢাকার পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডের স্বীকৃতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে উৎসর্গ করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন।

মঙ্গলবার ডিএসসিসির কনফারেন্স রুমে গিনেসের স্বীকৃতিবিষয়ক এক সংবাদ সম্মেলনে বঙ্গবন্ধুন নামে তা উৎসর্গ করেন মেয়র।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) আয়োজিত ‘ডেটল পরিচ্ছন্ন ঢাকা’ কর্মসূচি দিয়ে নতুন রেকর্ড গড়ে বাংলাদেশ। সর্বাধিক সংখ্যক মানুষ একই জায়গায় ঝাড়ু দেবার এই রেকর্ডটি আগে ভারতের দখলে ছিল (৫,০৫৮ জন)। ওই রেকর্ড ভেঙে বর্তমানে ‘গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডে’ বাংলাদেশ নতুন রেকর্ডের অধিকারী (৭,০২১জন)।

মেয়র বলেন, পরিচ্ছন্নতা বিষয়ে এ রেকর্ড করাই আমাদের উদ্দেশ্য ছিল না। আমরা চেয়েছি, এমন কর্মসূচির মাধ্যেমে শহরবাসী পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে সচেতন হবে। আর এই রেকর্ডের মাধ্যেমে বিশ্ববাসী জেনেছে, এ দেশের মানুষ পরিচ্ছন্নতায় সচেতন জাতি। আমাদের এই অর্জন, সেই নেতার নামে উৎসর্গ করতে চাই, যে নেতা না থাকলে আমরা এই দেশ এই স্বাধীনতা পেতাম না।

তিনি বলেন, এই রেকর্ড গড়ার সম্মানে আমাদের পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম আরও ব্যাপকভাবে অব্যাহত থাকবে। এই সম্মান তখনই অর্থবহ-কার্যকর হবে যখন এই শহরবাসীকে পরিপূর্ণ একটি পরিচ্ছন্ন শহর উপহার দিতে পারবো। শহরকে পরিচ্ছন্ন রাখতে শুধু একজন মেয়রের পক্ষ এ বিশাল কার্যক্রম পরিচালনা সম্ভব নয়। এ জন্য প্রতিটি নাগরিককে মেয়রের ভূমিকায় থাকতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহম্মাদ বিল্লাল, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা শেখ সালাউদ্দিন, রেকিট বেনকিজারের মার্কেটিং ডিরেক্টর সৈয়িদ তানজিম রেজওয়ান, জিটিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমান আশরাফ ফায়েজ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, গত ১৩ এপ্রিল প্রতীকী পরিচ্ছন্নতায় গিনেচ বুকে থাকা আগের রেকর্ডের লোকসংখ্যার থেকে অনেক বেশি লোক অংশগ্রহণ করে ডেটল পরিচ্ছন্ন ঢাকা কর্মসূচিতে।

ডিএসসিসি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, স্বচ্ছ ঢাকা গড়তে নগরবাসীকে সচেতন করতে প্রতীকী এই কর্মসূচির আয়োজন ছিল। এর মাধ্যমে পুরো নগরী পরিচ্ছন্ন না হলেও জনগণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি পাবে। পাশাপাশি এই শহরের নাম গিনেস ওয়ার্ল্ড বুকে লেখা থাকবে। ডিএসসিসি ও রেকিট বেনকিজার বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগে ‘ডেটল পরিচ্ছন্ন ঢাকা’ নামে এ প্রচার অভিযান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

কর্মসূচিতে জাতীয় স্কাউট, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর ( বিএনসিসি), ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি), ফায়ার সার্ভিস, নৃত্যশিল্পী, চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিচালক, অভিনেতা, বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে লোকজন অংশ নিয়েছিলেন। এতে প্রায় ১৫ হাজারের বেশি মানুষ অংশগ্রহণ করলেও চূড়ান্ত নিরীক্ষায় ও নিরপেক্ষ অডিট রিপোর্ট মোতাবেক ৭ হাজার ২১ জন ওই নিদিষ্ট এক মিনিট সক্রিয়ভাবে গিনেসের সব নীতিমালা পূরন করে রেকর্ডে অংশগ্রহণ করেছিলেন, যা পরবর্তিতে যাচাইয়ের মাধ্যমে নিশ্চিত করা হয়।

ডিএসসিসির সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, ভারতের আহমেদাবাদের কাছের একটা শহরে ৫ হাজার ২৬ জনকে নিয়ে এক কিলোমিটার রাস্তা পরিষ্কার করার মাধ্যমে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে স্থান করার একটি রেকর্ড রয়েছে। সেই রেকর্ড ভাঙার চেষ্টা করার পাশাপাশি পরিচ্ছন্নতায় জনগণকে সচেতন করতে এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছিল।



মন্তব্য চালু নেই