মেইন ম্যেনু

পরীক্ষাকেন্দ্রে ছাত্রীর জামার হাতা কেটে দিলেন পরিদর্শক

ছাত্রীর অপরাধ ছিল তিনি বড় হাতাওয়ালা জামা পরে পরীক্ষা দিতে এসেছেন। এতেই ক্ষুব্ধ পরিদর্শক। অবশেষে তিনি কাঁচি দিয়ে ওই ছাত্রীর জামার হাতা কেটে ছোট করে দিলেন। ভারতের বিহার রাজ্যে মোজাফফপুর জেলায় এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী ওই মেয়ে পরীক্ষার্থী নার্সিং ভর্তি পরীক্ষা দিতে এসেছিলেন। খবর এনডিটিভি।

সরকারি কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে রোববার এনডিটিভি জানায়, এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও ফুটেজ শনিবার স্থানীয় একটি চ্যানেল প্রচার করলে স্থানীয় লোকজন ও অভিভাবকরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন।

রাজ্যের জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা লালন প্রসাদ সিং জানান, পরীক্ষার্থীদের ফুল হাতা জামা পরে আসতে নিষেধ করা হয়েছিল। কিন্তু কিছু পরীক্ষার্থী এ বিষয়টি ভুলে যান। ফুটেজের উদ্ধৃতি দিয়ে সিং বলেন, ফুটেজে দেখা যায়, পরীক্ষাকেন্দ্রের কর্মচারীরা কাঁচি এবং ব্লেড দিয়ে প্রকাশ্যে ওই ছাত্রীর জামার হাতা কেটে ছোট করে দিচ্ছেন।

এ ঘটনায় শিক্ষা বিভাগ থেকে তদন্ত শুরু হয়েছে জানিয়ে ওই কর্মকর্তা আরও জানান, যে স্কুলে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছিল ওই স্কুলে ভবিষ্যতে সকল ধরনের প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা নেয়া থেকে বিরত থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ওই স্কুলকে ব্লাকলিস্টে রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, এ ঘটনার পিছনে যে কারণ ছিল তা নিয়ে প্রশ্ন করার সুযোগ নেই এবং এ কাজটি নারী কর্মচারী দিয়েই করা হয়েছে। তবে এটি প্রকাশ্যে করায় সমস্যা হয়ে গেছে।

পরীক্ষাকেন্দ্রে যারা পরিদর্শকের দায়িত্বে ছিলেন এ ঘটনায় তাদের আজীবন নিষিদ্ধ করা হয়েছে বলে তিনি জানান।



মন্তব্য চালু নেই