মেইন ম্যেনু

পুলিশ কর্মকর্তার সাথে স্ত্রীর পরকীয়া, অন্তরঙ্গ ভিডিও নিয়ে থানায় গেল স্বামী!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- নিজের স্ত্রীর সঙ্গে পুলিশ কর্মকর্তার অবৈধ সম্পর্ক রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন এক যুবক। সেই সাথে ওই যুগলের আপত্তিকর ভিডিও ক্লিপিংসও প্রকাশ করলেন স্বামী ভারতের বেঙ্গালুরুর তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী।

স্বামীর অভিযোগ, বারবার নিষেধ করা সত্ত্বেও আমার স্ত্রীর সঙ্গে গোপনে সম্পর্ক রেখেছেন ওই পুলিশকর্তা। শুধু তাই নয়, তাঁদের আপত্তিকর ভিডিও দেখে ফেলেছেন জানতে পেরে, তাঁকে এনকাউন্টারের খুনের হুমকিও দিয়েছেন অভিযুক্ত আইপিএস অফিসার।

এরপরেই ওই পদস্থ পুলিশকর্তার বিরুদ্ধে থানায় যান তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী। অভিযোগ, পুলিশও অভিযোগ নিতে গড়িমসি করে। পরে একপ্রকার বাধ্য হয়েই রবিবার রাতে একটি জেনারেল ডায়েরি নেয় পুলিশ।

এসময় অভিযোগের সঙ্গে পুলিশ কর্মকর্তা ও তার স্ত্রীর অন্তরঙ্গ দৃশ্যের একটি ভিডিও ক্লিপিংসও দেখান অভিযোগকারী ব্যক্তি। দিন দুয়েক আগে স্ত্রীর ফোনেই ভিডিওটি দেখতে পান তিনি। এরপরেই থানায় যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

অভিযোগকারী জানিয়েছেন, কর্মসূত্রেই ২০১০-এ মার্কিন মুলুকে চলে যান বেঙ্গালুরু দেবানগিরির বাসিন্দা তথ্যপ্রযুক্তিবিদ। এর দু’বছর পর তিনি সপরিবারে দেশে ফেরেন। দেবানগিরিতে এক তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থায় যোগও দেন। সেই সময় গ্রাফিক্স ডিজাইনিংয়ের স্টুডিও তৈরি করে কাজ শুরু করেছেন তাঁর স্ত্রী। ২০১৭ নাগাদ সেই স্টুডিওতে আসেন ওই আইপিএস অফিসার। উদ্দেশ্য, তাঁর যমজ কন্যার ফটোশুট করা।

অভিযোগ, তারপর থেকে প্রায়ই দু’জনে দেখা করতে শুরু করেন। তাঁদের মধ্যে একটা সম্পর্ক তৈরি হলেও এবিষয়ে বিন্দুবিসর্গ জানতে পারেননি ওই তথ্যপ্রযুক্তিবিদ। তাঁরা কখনও আইপিএসের অফিসে কখনও কফিশপে দেখা করতে থাকেন। জানতে পেরে একবার স্ত্রীকে সাবধানও করেন ওই তথ্যপ্রযুক্তিবিদ।

এরপর বেশ কিছুদিন দেখাসাক্ষাৎ বন্ধ থাকলেও ফের গোপনে শুরু হয় যোগাযোগ। দেবানগিরিতে একটা রিসর্ট বুক করে যুগলে অভিসারেও নামেন। এদিকে নিষেধ পরবর্তী সাক্ষাৎপর্বের কিছুই জানতেন না ওই তথ্যপ্রযুক্তিবিদ।

এদিকে একটি সূত্র বলছে, স্বামীর সঙ্গে বিবাহিত সম্পর্কে সুখি নন ওই মহিলা। তাঁর গত কয়েকমাস ধরে আলাদাই থাকছেন। খুব শিগগিরি তিনি স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করবেন। তথ্য সূত্র- সংবাদ প্রতিদিন



মন্তব্য চালু নেই