মেইন ম্যেনু

প্রশ্নফাঁসের অভিযোগে ঢাবির ৮৭ শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে চার্জশিট

দীর্ঘ দেড় বছরের তদন্ত শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বহুল আলোচিত প্রশ্নফাঁস মামলার অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৮৭ শিক্ষার্থীসহ ১২৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর মালিবাগের সিআইডি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সংস্থার প্রধান মোহা. শফিকুল ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, প্রশ্নফাঁসের এ মামলায় আরও অনেকের তথ্য যাচাইয়ের কাজ চলমান রয়েছে। সঠিক নাম-ঠিকানা পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধেও সম্পূরক অভিযোগপত্র দেয়া হবে।

সিআইডিপ্রধান জানান, অর্গানাইজড ক্রাইম ইউনিটের বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্যা নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি দল তদন্তের মাধ্যমে এই প্রশ্নফাঁস ও ডিজিটাল জালিয়াত চক্রকে চিহ্নিত করতে সক্ষম হয়।

এতে মূল হোতাসহ ৪৭ জন গ্রেফতার এবং তাদের মধ্যে ৪৬ জনই আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, আলোচিত এ ঘটনার শুরু ২০১৭ সালের ১৯ অক্টোবর মধ্যরাতে। ওই রাতে একজন গণমাধ্যমকর্মীর দেয়া কিছু তথ্যের ভিত্তিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুটি আবাসিক হলে অভিযান চালায় সিআইডি। গ্রেফতার হন মামুন ও রানা নামের দুই শিক্ষার্থী।

২০১৭ সালের ২০ অক্টোবর এ ঘটনায় শাহবাগ থানায় মামলা হয়। পরে তদন্তে প্রশ্নফাঁস চক্রের নানা তথ্য বেরিয়ে আসতে শুরু করে।



মন্তব্য চালু নেই