মেইন ম্যেনু

প্রিয়া সাহার নিরাপত্তার দাবিতে কলকাতায় বিজেপির বিক্ষোভ

বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন বন্ধ এবং প্রিয়া সাহার নিরাপত্তার দাবিতে কলকাকাতার বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশনের সামনে বিক্ষোভ করেছে বিজেপি।

বৃহস্পতিবার ভারতীয় জনতা পার্টির উদ্বাস্তু সেলের আহ্বায়ক মোহিত রায়ের নেতৃত্বে এ বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে দলটি।

বাংলাদেশে হিন্দুদের নিরাপত্তা চেয়ে এই বিক্ষোভে শতাধিক বিজেপি কর্মী অংশগ্রহণ করেন। তাদের দাবি, বাংলাদেশের হিন্দুকন্যা প্রিয়া সাহা বিপদের মুখে দেশ ছেড়েছেন।

কলকাতার পার্ক সার্কাসের বঙ্গবন্ধু সরণিতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের সামনে ওই বিক্ষোভ কর্মসূচি থেকে স্মারকলিপি দেয়ারও পরিকল্পনা ছিল বিজেপির। তবে বিজেপি নেতা এবং উদ্বাস্তু সেলের আহ্বায়ক মোহিত রায়সহ ৩২ জনকে ঘটনাস্থল থেকে গ্রেফতার রাজ্য পুলিশ।

এদিকে বাংলাদেশ দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি উপলক্ষে সকাল থেকেই পুলিশ বাহিনী দূতাবাসে বিশেষ নিরাপত্তা দিয়েছিল।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ জুলাই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ধর্মীয় স্বাধীনতা ও সহিষ্ণুতা বিষয়ে বিশ্বের বিভিন্ন ধর্মীয় নেতা ও প্রতিনিধিদের সঙ্গে হোয়াইট হাউজে কথা বলেন।

এতে বাংলাদেশি পরিচয়ে প্রিয়া সাহা উপস্থিত হয়ে ট্রাম্পের কাছে অভিযোগ করেন, আমি বাংলাদেশ থেকে এসেছি। বাংলাদেশে ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান নিখোঁজ রয়েছেন। দয়া করে আমাদের লোকজনকে সহায়তা করুন। আমরা আমাদের দেশে থাকতে চাই।

এরপর তিনি বলেন, এখন সেখানে ১ কোটি ৮০ লাখ সংখ্যালঘু রয়েছে। আমরা আমাদের বাড়িঘর খুইয়েছি। তারা আমাদের বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে, তারা আমাদের ভূমি দখল করে নিয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো বিচার পাইনি।

এক পর্যায়ে ট্রাম্প নিজেই সহানুভূতিশীলতার স্বরূপ এই নারীর সঙ্গে হাত মেলান। এ সময় ট্রাম্প প্রশ্ন করেন, কারা জমি দখল করেছে, কারা বাড়ি-ঘর দখল করেছে?

ট্রাম্পের প্রশ্নের উত্তরে প্রিয়া সাহা বলেন, তারা মুসলিম মৌলবাদি গ্রুপ এবং তারা সব সময় রাজনৈতিক আশ্রয় পায়। সব সময়ই পায়।

প্রিয়া সাহার সেই সাক্ষাতকারের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহা। তার ওই বক্তব্যে বাংলাদেশে এখনও সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে।



মন্তব্য চালু নেই