মেইন ম্যেনু

বর্ষা মৌসুমে বৈরী আবহাওয়ায় রোহিঙ্গাদের নিয়ে উদ্বেগ

বাংলাদেশে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে বৈরী আবহাওয়ায় রোহিঙ্গাদের নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনের (ইউএনএইচসিআর) শুভেচ্ছা রাষ্ট্রদূত ক্যাট ব্ল্যাচেট।

তিনি মনে করেন, আগামী কয়েকমাসের মধ্যে বাংলাদেশে মৌসুমি প্রভাব থেকে রক্ষা পেতে এখন থেকেই সর্তক হতে হবে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের। কারণ আসন্ন বৃষ্টিপাত, সম্ভাব্য ঘূর্ণিঝড় এবং প্রতিকূল আবহওয়ার কারণে লাখ লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থী গুরুতর ঝুঁকির মধ্যে পরতে পারে।

ইউএনএইচসিআর প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৭ সালে আগস্টে মিয়ানমারের নির্মম অত্যাচার এবং সেনাবাহিনীর হত্যাকাণ্ডে মায়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আসতে বাধ্য হয়েছে প্রায় ৬ লাখ ৭১ হাজারেও বেশি রোহিঙ্গা শিশু, নারী ও পুরুষ। তারা তাদের গ্রাম থেকে জঙ্গল, পাহাড় এবং নদী পার হয়ে আশ্রয় নেয় বাংলাদেশের কক্সবাজারে। বেশ কয়েকদিন হাঁটতে গিয়ে অনেক রোহিঙ্গা নিখোঁজ এবং ক্ষুধার্ত ও অসুস্থ হয়ে পড়েছিল।

তবে বর্ষার মৌসুমে বাংলাদেশ সরকারকে শরণার্থীদের ভারী বৃষ্টিপাত থেকে মোকাবেলা করতে এবং তাদের নিরাপদ ও সুরক্ষা থাকার জন্য জাতিসংঘের সংস্থা ইউএনএইচসিআর সকল সহযোগিতা করবে।

বাংলাদেশের রোহিঙ্গা ক্যাম্পের শরণার্থী বসতিস্থল পরিদর্শন শেষে ক্যাট ব্ল্যাচেট বলেন, আমি ইউএনএইচসিআর এর অংশীদার হিসেবে শরণার্থীদের সাথে প্রথম দেখা করেছি। ওই এলাকায় রাস্তাঘাট, অবকাঠামো এবং তাদের বাসস্থান সব ঝুঁকির মধ্যে আছে। তাই তাদের নিরাপদ জায়গায় স্থানান্তর নিশ্চিত করতে আরও জরুরি উদ্যোগ প্রয়োজন।



মন্তব্য চালু নেই