মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশে মানুষের গড় আয়ু বেড়েছে, কমেছে শান্তি

বিগত বছরের চেয়ে বাংলাদেশের মানুষের গড় আয়ু কিছুটা বেড়েছে। নতুন প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী গড় আয়ু ৭২ দশমিক ৩ বছর। এর মধ্যে পুরুষের আয়ু ৭০.৮ বছর আর নারী ৭৩.৮ বছর। তবে আয়ু বাড়লেও বৈশ্বিক শান্তি সূচকে (জিপিআই) বড় ধরনের অবনতি ঘটেছে বাংলাদেশের। এই সূচকে গত বছরের চেয়ে চলতি বছরে ৯ ধাপ অবনতি ঘটেছে।

বুধবার বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) মনিটরিং দ্যা সিচুয়েশন অব ভাইটাল স্টাটিসটিক্স অব বাংলাদেশ (এমএসভিএসবি) এর প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশের মানুষের গড় আয়ু এখন ৭২ দশমিক ৩ বছর। ২০১৭ সালে বাংলাদেশের মানুষের গড় আয়ু ৭২ বছর ছিলো। এছাড়া ২০১৬ সালে ৭১.৬ বছর, ২০১৫ সালে ৭০.৯ বছর, ২০১৪ সালে গড় আয়ু ছিলো ৭০.৭ বছর ও ২০১৩ সালে গড় আয়ু ছিলো ৭০.৪ বছর।

প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী পুরুষের তুলনায় নারীরা ৩ বছর বেশি বাঁচেন।

আগারগাঁওয়ের পরিসংখ্যানে ভবনে এ প্রতিবেদন প্রকাশনা অনুষ্ঠান হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

অন্যদিকে গত বছর বিশ্ব শান্তির এ সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ৯৩তম ছিল। এ বছর অবনমন ঘটে বাংলাদেশ দাঁড়িয়েছে ১০১তম অবস্থানে। তবে এবারের সূচকে ভারত (১৪১তম), পাকিস্তানের (১৫৩তম) চেয়ে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ।

অস্ট্রেলিয়ার সিডনিভিত্তিক আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইনস্টিটিউট ফর ইকোনমিকস অ্যান্ড পিস (আইইপি) বিশ্ব শান্তি সূচক-২০১৯ তৈরি করেছে।
সূচকে বিশ্বের স্বাধীন ১৬৩টি দেশের নাগরিকদের শান্তিপূর্ণ জীবন-যাপন, অর্থনৈতিক মূল্য, ট্রেন্ড এবং শান্তিপূর্ণ সমাজ গঠনে দেশগুলোর নেয়া পদক্ষেপের তথ্যের ওপর ভিত্তি করে এই সূচক তৈরি করা হয়েছে।

জিপিআই বলছে, বিশ্ব শান্তি সূচকে ৯ ধাপ পিছিয়েছে বাংলাদেশ। গত বছর ৯৩তম অবস্থানে থাকলেও এ বছর ১০১তম অবস্থানে নেমে এসেছে। বাংলাদেশে গত বছর রাজনৈতিক সহিংসতায় ক্ষতি হয়েছে প্রায় ২২ হাজার ২৯৭ দশমিক ৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা মোট দেশজ উৎপাদনের ৩ ভাগ।



মন্তব্য চালু নেই