মেইন ম্যেনু

বিএনপি-জামায়াত জোট ছোবল দিতে পারে : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘ওদের (বিএনপি-জামায়াত) চরিত্র বদলায় নাই। যেহেতু জানে তারা নির্বাচনে জয়ী হবে না, তারা হেরে যাবে, কাজেই হেরে যাওয়ার প্রাক্কালে তারা যেকোনো রকম ছোবল মারতে পারে।’

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর ধানমণ্ডিতে নিজ বাসা সুধাসদন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে টাঙ্গাইল, কুমিল্লা, যশোর, পাবনা ও পঞ্চগড়ে নির্বাচনী জনসভায় অংশ নিয়ে এসব বলেন প্রধানমন্ত্রী। আগামী ৩০ ডিসেম্বর শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হবে এবং আওয়ামী লীগ জয়লাভ করে সরকার গঠন করবে বলেও আশা প্রকাশ করেন শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘নির্বাচনে কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে আইনশৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীর হাতে তুলে দিতে হবে।

প্রথমে কুমিল্লা টাউন হল ময়দানে আয়োজিত জনসভায় কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। আগামী ৩০ ডিসেম্বর যেন শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় সেজন্য সবাইকে সজাগ থাকার আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘পয়লা ডিসেম্বর থেকে ২৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত তারা সারা বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের পাঁচজন নেতাকর্মীকে হত্যা করেছে। ৪৪১ জন তাদের হাতে আহত হয়েছে। আওয়ামী লীগের ১৭০টি অফিস, বাড়ি ঘর তারা ভাঙচুর করেছে। বাংলাদেশের সবাইকে অত্যন্ত সতর্ক থাকতে হবে। এ ধরনের সন্ত্রাসী কাজ যদি কেউ করতে আসে সাথে সাথে আইন শৃঙ্খলারক্ষাকারী সংস্থার হাতে তাদের তুলে দিতে হবে। জনগণ যেন এক হয়ে থাকেন, যাতে কোনোমতে যেন তারা এ ধরনের কর্মকাণ্ড করতে না পারে। বাংলাদেশের মানুষ শান্তি চায়। এ নির্বাচনটা শান্তিপূর্ণ হবে।’

পরে ভিডিও কনফারেন্সে টাঙ্গাইলে রাখা বক্তব্যে, বিএনপি জামায়াতকে জঙ্গি ও সন্ত্রাসীদের জোট উল্লেখ করে, তারা যেন আর ক্ষমতায় আসতে না পারে সে বিষয়ে দেশবাসীকে সতর্ক করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘কারণ ওদের চরিত্র বদলায় নাই। যেহেতু জানে তারা নির্বাচনে জয়ী হবে না, তারা হেরে যাবে, কাজেই হেরে যাওয়ার প্রাক্কালে তারা যেকোনো রকম ছোবল মারতে পারে। তারা তাদের প্রচার চালাক। যত দল; তারা নির্বিঘ্নে প্রচার চালাবেন, এতে কোনো বাধা দেবেন না দয়া করে।’

পাবনার জনসভায় নির্বাচনে জয়ী হতে দলের সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘প্রত্যেকে নির্বাচনে অংশ নেবে। কিন্তু জনগণ সিদ্ধান্ত নেবে কাকে ভোট দেবে। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি বাংলাদেশের জনগণের মাঝে যে উন্নয়নের ছোঁয়া পৌঁছে গেছে, মানুষ এখন সুন্দর জীবনের স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘কোনো জঙ্গি, সন্ত্রাসী যেন ক্ষমতায় আসতে না পারে। ধানের শীষ মানেই হচ্ছে সন্ত্রাস, ধানের শীষ মানেই জঙ্গিবাদ, এতিমের অর্থ আত্মসাৎ করা, মানি লন্ডারিং করা, দশ ট্রাক অস্ত্র, গ্রেনেড হামলা দিয়ে মানুষ হত্যা করা।’

এ ছাড়া ভিডিও কনফারেন্সেই টাঙ্গাইল ও পঞ্চগড়ের জনসভায় অংশ নিয়ে নৌকা প্রতীকে সবার কাছে ভোট চান আওয়ামী লীগ সভাপতি।



মন্তব্য চালু নেই