মেইন ম্যেনু

বিজয় বরণে প্রস্তুত সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধ

দিন পেরোলেই ১৬ ডিসেম্বর, মহান বিজয় দিবস। বাঙ্গালী জাতির ইতিহাসের সবচেয়ে গৌরবময় দিন। গৌরবময় দিনটি উপলক্ষে জাতির শ্রেষ্ট সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত সাভারের জাতীয় স্মৃতি সৌধ। শেষ হয়েছে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অব অনারে তিনবাহিনীর কসরত ও ঢাকা জেলা পুলিশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোড়াদারের সকল প্রস্তুতি।

মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে জাতীয় স্মৃতি সৌধের প্রস্তুতি নিয়ে আওয়ার নিউজবিডি.কম এর রিপোর্ট।

৯’ মাসের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ৩০ লক্ষ শহীদ আর ২’লক্ষ মা-বোনের ইজ্জতের বিনিমেয় ১৯৭১’র ১৬ ডিসেম্বর পাকহানাদারদের আত্মসর্মপনের মধ্য দিয়ে অর্জিত বিজয়ে বিশ্ব মানচিত্রে জন্ম নেয় স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্র।

৭১’য়ের জীবন দেয়া সেসব বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে সাভারের নির্মিত হয় জাতীয় স্মৃতি সৌধ।

মাসব্যাপী সৌধ চত্তরের স্থাপনার মেরামত, ধোয়া-মোছা, রং এর কাজ সহ উদ্যান ও ফুল বাগানের আগাছা কেটে-ছেটে পরিষ্কারের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়েছে সৌন্দর্য বর্ধনের সকল কাজ। সবুজ বনানী ঘেরা ফুলে ফুলে শুশোভিত জাতীয় স্মৃতি সৌধ বীর শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনে প্রস্তুত বলে জানালেন গণপূর্ত বিভাগের প্রকৌশলী মিজানুর রহমান।

সেনাবাহিনীর তত্বাবধানে ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া তিন বাহিনীর গার্ড অনারের প্রস্তুতি।

নিরাপত্তা বাড়াতে সৌধ চত্তর ও বাহিরে বসানো হয়েছে সিসি টিভি ক্যামেরা। একাধিকস্থান থেকে মনিটোরিং সহ প্রশাসনের বিশেষ নজরদারির কথা জানালেন ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার শাহ মিজান শাফিউর রহমান।

জাতীয় স্মৃতিসৈাধ বাঙ্গালী জাতীর কাছে একটি পবিত্রতমস্থান। সৈাধ প্রঙ্গণে দলীয় নেতা,কর্মী বা সাধারণ জনতা সবাইকে সুশৃঙ্খল ভাবে বিজয় দিবস পালনের অনুরোধ জানান সাভারের সংসদ সদস্য এনামুর রহমান।

এদিকে প্রশাসনের পাশাপাশি দলীয় নেতা কর্মীরাও স্মৃতিসৈাধে আসা সকল দর্শনাথীদের যাতায়েত নির্বিঘ্ন করতে কাজ করবে বলে জানান সাভার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফখরুল আলম সমর।

মহান বিজয় দিবসে বীর শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে সাভারের জাতীয় স্মৃতি সৌধে আগত প্রতিটি রাজনৈতিক দল, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবি সংগঠনের নেতা-কর্মী সহ সকল শ্রেনী-পেশার সাধারন মানুষ দেশের মর্যাদার প্রশ্নে,সকল ভেদাভেদ ভুলে ত্রক হয়ে রুখে দাড়াবার অঙ্গীকার হোক সবার।






মন্তব্য চালু নেই