মেইন ম্যেনু

বিপিএল চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

লক্ষ্য বিশাল, জিততে হলে ২০০ রান করতে হবে। এই রান তাড়া করতে নেমে ঢাকা ডায়নামাইটসের শুরুটা হয়েছিল দারুণ। কিন্তু সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারেনি সাকিব আল হাসানের দল। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের বিশাল সংগ্রহ টপকাতে পারেনি তারা। তাই দারুণ জয়ে শিরোপার উল্লাস করে তামিম-ইমরুলরা। ম্যাচে তারা জিতেছে ১৭ রানে।

শুক্রবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ফাইনালে টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করে কুমিল্লা গড়ে ১৯৯ রান। জবাবে ঢাকার ইনিংস থেমে যায় ১৮২ রানে।

বিপিএলে কুমিল্লার এটি দ্বিতীয় শিরোপা। এর আগে ২০১৫ সালে বরিশাল বুলসকে ৩ উইকেটে হারিয়ে প্রথম শিরোপা জিতেছিল তারা। দুই মৌসুম পর আবার শিরোপা জিতেছে তারা।

আসরের সবচেয়ে বেশিবার চ্যাম্পিয়ন ঢাকা এ নিয়ে পঞ্চমবার ফাইনালে উঠেও শিরোপা হাতছাড়া করে। এর আগে তারা তিনবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল, আর গতবার হয়েছিল রানার্সআপ। গত আসরে রংপুর রাইডার্সের কাছে হেরে শিরোপা হাতছাড়া করেছিল তারা, এবার কুমিল্লার কাছে হেরে একই দশা হয় তাদের।

তবে এদিন বিশাল সংগ্রহের জবাবে ওপেনার উপুল থারাঙ্গা ও ওয়ানডাউনে নামা রনি তালুকদারের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে মনে হয়েছিল জয়টা বুঝি সহজই হবে ঢাকার। কিন্তু হঠাৎই যেন চিত্র পাল্টে যায়। খেই হারিয়ে ফেলে তাদের ব্যাটসম্যানরা। ইনিংসের নবম ওভারে থারাঙ্গা (৪৮) সাজঘরে ফিরলে সব চিত্র পাল্টে যায়। একে একে সাকিব (৩), পোলার্ড (১৩) ও আন্দ্রে রাসেল (৪) সাজঘরের পথ ধরেন। রনি সর্বোচ্চ ৬৬ রান করেন।

এর আগে ওপেনার তামিম ইকবালের অসাধারণ সেঞ্চুরিতে কুমিল্লা গড়ে পাহাড়সম সংগ্রহ। কুমিল্লা গড়া ১৯৯ রানে তামিম একাই নিয়েছেন ১৪১ রান।

উদ্বোধনীতে ব্যাট করতে নেমে বেশ সতর্কভাবে শুরু করেছিলেন এই তামিম। যদিও দলীয় ৯ রানের মাথায় আরেক ওপেনার এভিন লুইসের উইকেট হারিয়ে বসে তারা। কিন্তু এনামুল হককে (২৪) সঙ্গে নিয়ে দলকে ধীরে ধীরে এগিয়ে নেন তিনি। আর শেষ দিকে এসে ঝড় তুললেন এই বাঁহাতি ওপেনার। তামিম ঝড়ে যেন উড়ে গেছেন ঢাকার বোলাররা।

তামিম ৬১ বল খরচায় ১৪১ রানের চমৎকার ইনিংস খেলেন। যাতে ১০ চার ও ১১টি ছক্কার মার রয়েছে। ঢাকার বোলাররা তাঁর সামনে যেন অসহায় ছিলেন। এই কুমিল্লা ওপেনারের মার থেকে বাদ যাননি কেউই।

এবারের আসরে লিগ পর্বে দুবার ঢাকাকে হারানোর অভিজ্ঞতা আছে কুমিল্লার। সেই সুখস্মৃতি মনে রেখে মানসিকভাবে এগিয়ে যায় তারা। এক আসরে তৃতীয়বার হারিয়েছে তাদের।



মন্তব্য চালু নেই