মেইন ম্যেনু

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনাকে কোপায় টিকে রাখলেন দার্লিস!

ফুটবলীয় কারণে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা চিরশত্রু। বিশেষ করে বিশ্বজুড়ে দুই দলের সমর্থকদের সম্পর্কটা যেন দা-কুমড়ার! তবে চিরকালীন সেই শত্রুতা ভুলে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার সমর্থকদের উচিত, একজোট হয়ে দার্লিস গঞ্জালেসকে একটা বড়সড় ধন্যবাদ দেওয়া! ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনা যে এখনো এবারের কোপায় টিকে আছে, সেটা তো এই দার্লিস গঞ্জালেসের কুপাতেই। প্রিয় দলের এত বড় উপকার করেছেন যিনি, ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার সমর্থকদের কি উচিত নয়, তাকে স্পেশাল একটা ধন্যবাদ দেওয়া!

দার্লিসের জন্য বড় ট্র্যাজেডি হলো, ব্রাজিল-আর্জেন্টিনাকে টিকিয়ে রেখে নিজ দল প্যারাগুয়েকেই তিনি ছিটকে ফেললেন কোপা আমেরিকা থেকে। আজ ভোরে কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলের কাছে টাইব্রেকারে (৪-৩) হেরে কোপা থেকে বিদায় নিয়েছে তার দল প্যারাগুয়ে। দলের এই স্বপ্নভঙ্গের জন্য তিনিই সবচেয়ে বেশি দায়ী। প্যারাগুইয়ানদের চোখে তিনি সাক্ষাৎ খলনায়ক।

আর ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার কাছে? নায়ক, বড় শুভাকাঙ্খী! ঘটনাটা খুলে বললেই ব্যাপারটি স্পষ্ট হবে। প্রথমে আর্জেন্টিনার কথাটাই বলা যাক। কলম্বিয়ার কাছে প্রথম ম্যাচে ২-০ গোলে হারার পর প্যারাগুয়ের বিপক্ষে কোনো রকমে ১-১ গোলে ড্র করে আর্জেন্টিনা। তাতে বেঁচে থাকে আর্জেন্টাইনদের শেষ আটের আশা। অথচ দার্লিস না থাকলে ওই ম্যাচেও আর্জেন্টিনাকে হারতে হতো!

সেদিন ম্যাচের প্রথম দিকেই এগিয়ে যায় প্যারাগুয়ে। দ্বিতীয়ার্ধে আর্জেন্টিনা সমতায় ফেরে লিওনেল মেসির পেনাল্টি গোলে। মেসির ওই পেনাল্টি গোলের একটু পরই ম্যাচে আবার পেনাল্টি পায় প্যারাগুয়ে। পেনাল্টি থেকে গোলটা করতে পারলেই জিতে যেত প্যারাগুয়ে। কিন্তু আর্জেন্টিনাদের ত্রাতা হয়ে দার্লিস গঞ্জালেস পেনাল্টিটা মিস করেন। অবশ্য তার শটটি দুর্দান্ত দক্ষতায় ঠেকিয়ে দেন আর্জেন্টাইন গোলরক্ষক ফ্রাঙ্কো আরমানি। তবে দার্লিস যদি সেদিন পেনাল্টিতে গোলটা করতে পারতেন, আর্জেন্টিনার হয়তো কোয়ার্টার ফাইনালেই উঠা হতো না!

আর্জেন্টাইনদের সৌভাগ্য উপহার দেওয়া সেই দার্লিসই আজ হাসি ফোটালেন ব্রাজিলিয়ানদের মুখে! আজকের কাণ্ডটাও সেই স্পষ্ট কিকেই। তবে মাঠের পেনাল্টিতে নয়, টাইব্রেকারে। টাইব্রেকারে প্যারাগুয়ের হয়ে শেষ শটটি নিতে আসেন দার্লিস। তার আগে ৩-৩ সমতা। মানে ব্রাজিল-প্যারাগুয়ে, দুই দলই প্রথম ৪ শটে ৩টি করে গোল করেছে। এ অবস্থায় দার্লিসের সামনে সুযোগ ছিল প্যারাগুয়েকে এগিয়ে দেওয়ার। সেটা হলে পরে কি হতো, কে জানে!

কিন্তু দার্লিস প্যারাগুয়েকে এগিয়ে দিতে পারেননি। বরং বল গোল পোস্টের হাত কয়েক বাইরে দিয়ে মেরে আনন্দে ভাসান ব্রাজিলিয়ানদের। তার সেই মিসের সুযোগ নিয়ে ব্রাজিলকে জিতিয়েছেন ম্যানচেস্টার সিটির ফরোয়ার্ড গ্যাব্রিয়েল জেসুস। ব্রাজিলের সেমিফাইনালে উঠার পেছনে তাই জেসুসদের মতো দার্লিসেরও রয়েছে বড় অবদান!



মন্তব্য চালু নেই