মেইন ম্যেনু

‘ভাই’ সেজে প্রেমিকার শ্বশুরবাড়িতে হাজির প্রেমিক, অতঃপর…!

প্রেমিকা বিবাহিত। কিন্তু মন যে সেই যুক্তি মানতে চায় না।

তাই ‘ভাই’ সেজে প্রেমিকার শ্বশুরবাড়ি পৌঁছে গিয়েছিলেন প্রেমিক। এ পর্যন্ত সব ঠিকই ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সব কিছু কেমন যেন ঘেঁটে গেল।
শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের বিহারের শেখপুরা জেলার কমাসি গ্রামে। কিন্তু ভাইরূপী সেই প্রেমিক ধরা পড়ে যান মেয়েটির স্বামীর কাছে। এরপর ওই প্রেমিকের সঙ্গেই প্রেমিকার বিয়ে দিয়ে দিয়েছেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন। কিন্তু

জানা গিয়েছে জিতেন্দ্র নামে ওই প্রেমিক তার প্রেমিকার শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে পৌঁছন। প্রেমিকার বাড়ির লোকজন তার পরিচয় জানতে চাইলে তিনি নিজেকে মেয়েটির চাচাতো ভাই বলে পরিচয় দেন। জিতেন্দ্র দাবি করেন, রীতি মেনে তিনি তার বোনকে বাপের বাড়ি নিয়ে যেতে এসেছেন।

সন্দেহ হওয়ায় নববিবাহিতা মেয়েটির স্বামী জয়চন্দ্র তার শ্বশুরবাড়িতে ফোন করেন। সেখান থেকে জানানো হয়, মেয়েকে আনার জন্য কাউকেই পাঠানো হয়নি। এরপরেই ছেলের বাড়ির লোকজনের সন্দেহ দৃঢ় হয়। প্রেমিক জিতেন্দ্রকে আটকে রেখে চাপাচাপি করতেই তার আসল পরিচয় জানা যায়।

এরপরে শনিবার পাত্রপক্ষ বাড়িতে পঞ্চায়েতের লোকজনকে ডেকে সালিশি সভা বসায়। সেখানেই প্রেমিক জিতেন্দ্রর সঙ্গেই নববিবাহিতা বধূর ফের বিয়ে দেওয়া হয়। পঞ্চায়েতের নিদান মেনে বিয়ে হয় জিতেন্দ্র এবং তার প্রেমিকার। সেই বিয়েতে অবশ্য মেয়েটির স্বামী জয়চন্দ্রও অংশ নেন বলে দাবি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, প্রায় এক বছর আগে জয়চন্দ্রর সঙ্গে ওই মেয়েটির বিয়ে হয়। কিন্তু ছ’মাস আগে একটি রং নম্বরের সূত্রে ফোনে জিতেন্দ্রর সঙ্গে সেই গৃহবধূর আলাপ হয়। শেষ পর্যন্ত তা প্রেমে গড়ায়।






মন্তব্য চালু নেই