মেইন ম্যেনু

‘ভারত তথ্যপ্রযুক্তিতে পরাশক্তি, পাকিস্তান সন্ত্রাস রপ্তানির কারখানা’

স্বাধীনতার ৭০ বছর পর, বর্তমানে ভারত তথ্যপ্রযুক্তিতে বিশ্বের অন্যতম শক্তিধর রাষ্ট্র, অন্যদিকে একই সময়ে পাকিস্তান পরিণত হয়েছে সন্ত্রাস রপ্তানির কারখানায়।

গতকাল শনিবার নিউইয়র্কে জাতিসংঘের ৭২তম অধিবেশনে দেওয়া ভাষণে এভাবেই পাকিস্তানকে কটাক্ষ করেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ।

ভারত সন্ত্রাসের পৃষ্ঠপোষকতা করছে, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শহিদ খাকান আব্বাসির এমন অভিযোগের জবাবে সুষমা বলেন, ‘আমরা দারিদ্রের বিরুদ্ধে লড়াই করছি। কিন্তু, আমাদের প্রতিবেশী পাকিস্তান কেবল আমাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতেই ব্যস্ত।’

জম্মু ও কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে ভারত, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর এমন অভিযোগের জবাবে পাল্টা খোঁচা মারেন সুষমা।

তিনি বলেন, “যাঁরাই তাঁর (আব্বাসির) কথা শুনেছেন, তাঁদের মন্তব্য এমনঃ ‘দেখো, কে কথা বলছে’।”

‘যে দেশটি এত দিন ধরে পৃথিবীতে ধ্বংস, মৃত্যু ও নিষ্ঠুরতার সবচেয়ে বড় ফেরিওয়ালা, এই মঞ্চ থেকে মানবতার বাণী কপচে তারা আজ ভণ্ডামিতে চ্যাম্পিয়ন।’

‘পাকিস্তানের রাজনীতিকদের আজ এটুকুই বলতে চাই যে, সবচেয়ে ভালো হয় যদি তাঁরা নিজেদের দিকে একটু তাকান। ভারত ও পাকিস্তান কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে স্বাধীন হয়েছিল। তাহলে, আজ কেন ভারত তথ্যপ্রযুক্তিতে স্বীকৃত এক পরাশক্তি এবং পাকিস্তানের পরিচয় কেবল সন্ত্রাস রপ্তানিকারক একটি দেশ?’

পাকিস্তানভিত্তিক সন্ত্রাসী সংগঠণগুলোকে ইঙ্গিত করে সুষমা বলেন, ‘আমরা তৈরি করেছি আইআইটি, আইআইএম ও এআইআইএমের মতো প্রতিষ্ঠান, আর পাকিস্তান সৃষ্টি করেছে এলইটি, হাক্কানিজ, জেইএম ও হিজবুল মুজাহিদীন।’

সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে পুরো বিশ্বকে সম্মিলিতভাবে রুখে দাঁড়াতে তাগিদ দিয়ে সুষমা বলেন, ‘আসুন আমরা আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সম্মিলিত সংহতি গড়ে তুলতে ঐক্যবদ্ধ হই।’






মন্তব্য চালু নেই