মেইন ম্যেনু

মধুর ক্যান্টিনে সংঘর্ষের ঘটনায় ছাত্রলীগের ৫ নেতাকর্মী বহিষ্কার

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সংঘর্ষের ঘটনায় সংগঠন থেকে একজনকে স্থায়ী বহিষ্কার ও চারজনকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

সোমবার ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সংসদের এক জরুরি সিদ্ধান্ত মোতাবেক জানানো যাচ্ছে যে গত ১৩ মে সোমবার ইফতার পরবর্তী সময়ে মধুর ক্যান্টিনে সংগঠিত অনাকাঙ্ক্ষিত এবং অপ্রীতিকর ঘটনা তদন্তের নিমিত্তে গত ১৩ মে গঠিত তিন সদস্যের তদন্ত কমিটির রিপোর্ট পর্যালোচনা করে ও তাদের সুপারিশের ভিত্তিতে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

ওই ঘটনায় স্থায়ী বহিষ্কার হয়েছেন জিয়া হল ছাত্রলীগের কর্মী সালমান সাদিক।

সাময়িক বহিষ্কৃতরা হলেন ছাত্রলীগের বিজ্ঞান অনুষদের সাধারণ সম্পাদক গাজী মুরসালিন অনু, জিয়া হল ছাত্রলীগের সদস্য কাজী সিয়াম ও কর্মী সাজ্জাদুল কবির এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য জারিন দিয়া।

এ ছাড়া দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে রোকেয়া হল ছাত্রলীগের সভাপতি বিএম লিপি আক্তার এবং জিয়া হল ছাত্রলীগের পরিকল্পনা ও কর্মসূচী বিষয়ক সম্পাদক হাসিবুর রহমান শান্তর বিরুদ্ধে কেন সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে না- তার লিখিত জবাব আগামী ৩ কার্যদিবসের মধ্যে দফতর সেলে জমা দেয়ার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী জানান, পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের পরপর মধুর ক্যান্টিনের ওই ঘটনায় আমরা মর্মাহত হয়েছি। তাৎক্ষণিক তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। তদন্ত কমিটির রিপোর্টের প্রেক্ষিতে আমরা এই পদক্ষেপ নিয়েছি।



মন্তব্য চালু নেই