মেইন ম্যেনু

মাদক সেবনে বাধা, স্ত্রীকে রক্তাক্ত করল এসআই!

মাদক সেবনে বাধা দেয়ায় স্ত্রী রাজিয়া সুলতানা নিলাকে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে এক এসআইয়ের বিরুদ্ধে। পরে গুরুত্বর অবস্থায় ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার (১০ জানুয়ারি) দুপুরে সাভার পৌর এলাকার তালবাগ মহল্লায় এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত এসআইয়ের নাম বদরুদ্দোজা মাহমুদ।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রাজিয়া সুলতানা নিলা বলেন, প্রায় ৯ মাস আগে তার স্বামী ঢাকা জেলা (উত্তর) ডিবিতে বদলি হয়ে আসার পর থেকে এ পর্যন্ত ৫ বার তার ওপর অমানুষিক নির্যাতন করেছে। প্রতিবারই মাদক সেবনে বাধা দেয়ার তাকে মারধর করা হয়। সে মাদক ব্যবসার সঙ্গেও যুক্ত।

বুধবার (১০ জানুয়ারি) দুপুরে কয়েকজন বখাটে নিয়ে বাসায় বসে মাদক সেবন করছিল এসআই দরুদ্দোজা মাহমুদ। এ সময় বাধা দিলে আমাকে পিটিয়ে জখম করে পালিয়ে যায় বদরুদ্দোজা।

নিলা আরো বলেন, ৪ বছর আগে তাদের বিয়ে হলেও তাদের সংসারে কোনো সন্তান নেই। স্বামীর অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে প্রায় ৫ মাস আগে স্বামীর বিরুদ্ধে ঢাকা জেলা পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ দিলে তখন তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়। ওই সময় তার বিরুদ্ধে মামলা করার পরামর্শ দিলে সংসারের কথা চিন্তা করে তা করিনি। তিন মাস বরখাস্ত থাকার পর তাকে ডিবি থেকে চট্টগ্রাম রেঞ্জে বদলি করা হলেও এখনও তিনি সেখানে যোগদান করেনি।

ওই পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রী বলেন, আমার বাবা নেই, মামাকে খবর দেয়া হয়েছে। তিনি আসলে থানায় অভিযোগ দেব।

ঢাকা জেলা (উত্তর) গোয়েন্দা পুলিশের ওসি এএফএম সায়েদ বলেন, এসআই বদরুদ্দোজা আমাদের অধীনে ডিবিতে ছিলেন। সম্প্রতি তাকে ডিবি থেকে চট্টগ্রাম রেঞ্জে বদলি করা হয়েছে। ওই কর্মকর্তা খুব খারাপ লোক, স্ত্রীকে প্রায়ই মারধর করতো। এজন্য আমি রিপোর্ট দিয়ে তাকে বদলি করিয়েছি। তবে এখন কোথায় আছে জানি না। এই ঘটনাটি সাভার থানায় জানিয়েছি এবং তার বিরুদ্ধে মামলা নেয়ার কথাও বলেছি।

এ বিষয়ে জানতে পুলিশের এসআই বদরুদ্দোজা মাহমুদের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেননি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সাভার মডেল থানার এসআই ফরহাদুজ্জামান ভূঁইয়া বলেন, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এসআই দরুদ্দোজা মাহমুদ’র স্ত্রী নিলার সঙ্গে কথা হয়েছে। একটু সুস্থ হলে অভিযোগ দেবেন তিনি।






মন্তব্য চালু নেই