মেইন ম্যেনু

মাদারীপুরে কনস্টেবল পদে নিয়োগে পুলিশের টাকা নেয়ার অভিযোগে

মাদারীপুর প্রতিনিধি : মাদারীপুরে পুলিশের কনস্টেবল পদে নিয়োগ পাইয়ে দেয়ার কথা দিয়ে টাকা গ্রহণের অভিযোগে পুলিশ সুপারের বডিগার্ডসহ দুই পুলিশকে আটক করে তাদেরকে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সে নেয়া হয়েছে। এছাড়া আরো দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে মাদারীপুর জেলা থেকে অন্যত্র বদলিও করা হয়েছে।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার সুব্রত কুমার হালদার জানান, গোপন খবরে গত ২৪ জুন জানতে পারে, মোটা টাকার উৎকোচ গ্রহণের করে পুলিশ লাইন্সের ম্যাস ম্যানেজার জাহিদ হোসেন কনস্টেবল পদে নিয়োগ দেওয়ার চেষ্টা করছেন।

এ খবরে ভিত্তি করে ওই দিনই ডিআইজি ঢাকা রেঞ্জ ও মাদারীপুর সদর থানা-পুলিশের মাধ্যমে জাহিদকে পুলিশ আটক করে ঢাকা হেডকোয়ার্টার্সে পাঠিয়ে দেয়া হয়। পরের দিন একই অভিযোগে তিন লাখ টাকাসহ আটক করে এসপির বডিগার্ড নূরুজ্জামান সুহনকে ঢাকায় হেডকোয়ার্টার্সে পাঠানো হয়।

এদিকে আরোও দুইজন কনস্টেবল পদে নিয়োগ নিয়ে প্রতারণার অভিযোগে ট্রাফিক ইন্সপেক্টর গোলাম রহমান ও পুলিশ লাইন্স হাসপাতালের স্বাস্থ্য সহকারী পিয়াস বালাকে গোয়েন্দা সংস্থা ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় অন্যত্র বদলি করা হয়। এ সময়ে মোটা অঙ্কের টাকা তাদের কাছ থেকে জব্দ করা হয়ে থাকে।

পুলিশ সুপার আরোও জানান, টাকা নিয়ে কনস্টেবল পদে নিয়োগ ও প্রতারণার অভিযোগে এসব পুলিশের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। তাদেরকে কঠোর শাস্তির আওতায় নিয়ে আসা হবে। মাদারীপুরে এবার ৫৪ জনকে কনস্টেবল পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।



মন্তব্য চালু নেই