মেইন ম্যেনু

রংপুরে বন্যায় ভেঙে পড়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থা

বন্যা ও অতি বর্ষণে ভেঙে পড়েছে রংপুরের যোগাযোগ ব্যবস্থা। সড়কের পাশাপাশি অনেক জায়গায় ব্রিজ-কালভার্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিশেষ করে গাইবান্ধা ও কুড়িগ্রামের অবস্থা শোচনীয়। পুরো বিভাগে কাঁচা-পাকা মিলিয়ে সাড়ে ৫শ’ কিলোমিটারের বেশি সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ঢলের তীব্র স্রোতের সামনে টিকতে পারছে না কোন কিছু। রাস্তাঘাট ব্রিজ-কালভার্ট ভেঙেচুরে ছুটছে বাঁধভাঙা পানি। এরইমধ্যে গাইবান্ধা জেলা সদরের সঙ্গে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে সাঘাটা ও সাদুল্লাহপুর উপজেলা এবং বালাসীঘাটের সড়ক যোগাযোগ। আর রেলপথে সারাদেশের সঙ্গে বিচ্ছিন্ন পুরো গাইবান্ধা জেলা। আর বন্যার পানিতে তলিয়ে আছে চর-দ্বীপচরের বাড়িঘর। প্রত্যন্ত এলাকায় বাস বলে খুব সহজে সাহায্য পৌঁছায় না বানভাসিদের হাতে।

১৬ নদীর জেলা কুড়িগ্রামে ৭২ কিলোমিটার কাঁচা ও ১৬ কিলোমিটার পাকা রাস্তা ও ৪১টি ব্রিজ-কালভার্ট সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া রংপুর, লালমনিরহাট ও নীলফামারীতে কাঁচা-পাকা মিলিয়ে সড়কের ক্ষতি আরও ৪শ’ কিলোমিটার।

এলাকাবাসী বলেন, রাস্তাঘাট ঠিক করে না বাঁধের কাজ করে না তাই তো রাস্তা ঘাট ভেঙ্গে যাচ্ছে।

পূর্ণাঙ্গ ক্ষয়ক্ষতি এখনও নিরূপণ করা সম্ভব না হলেও সাধ্যমত মেরামত হচ্ছে বলে জানিয়েছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ।

রংপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগ নির্বাহী প্রকৌশলী একেএম শফিকুজ্জামান বলেন, ছোট খাটো সমস্যার জন্য আমাদের পর্যাপ্ত জিনিস থাকে লেবারও থাকে। বড় ধরনের কিছু সমস্যা হয় সেক্ষেত্রে উর্ধ্বতন কর্মকর্তার অনুমতি সাপেক্ষে কাজ করা হয়।

তবে শ্রমিক ও বালু সংকটে জরুরি মেরামত কাজ ব্যহত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী ও ঠিকাদাররা।



মন্তব্য চালু নেই