মেইন ম্যেনু

রাম রহিমকেও ছাপিয়ে গেল আরেক ‘ধর্ষক বাবা’

‘ধর্ষক বাবা’ গুরমিত রাম রহিমের জেল হয়েছে ২০ বছরের। সেই মেয়াদকেও ছাপিয়ে তান্ত্রিক মহেশ চন্দ্রের জেল হয়েছে ২২ বছরের! ৬০ বছরের এক মহিলাকে ঠকানো এবং তাকে ধর্ষণ ও বিকৃত যৌন হয়রানির অভিযোগ তাকে এই শাস্তি দেওয়া হয়েছে।

মথুরার একটি ফাস্ট ট্র্যাক আদালতে এই শাস্তি ঘোষিত হয়েছে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ থেকে জানা যাচ্ছে, মহেশ চন্দ্রকে ধর্ষণের অপরাধে ১৫ বছরের সাজা দেওয়া হয়েছে। এর সঙ্গে বিকৃত যৌন হয়রানির জন্য ৬ বছর ও প্রতারণার জন্য ১ বছরের সাজা দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে ২২ বছরের সাজা। তবে পাশাপাশি ২২ হাজার টাকার জরিমানাও করা হয়েছে। অনাদায়ে আরও ৩৩ মাস জেল খাটতে হবে ভণ্ড বাবাকে। অতিরিক্ত জেলা বিচারক বিবেকানন্দ সারন ত্রিপাঠী তার রায়ে এ কথা জানিয়েছেন।

২০১৬ সালের জুলাই মাসে ওই বাবা বর্ষীয়ান এক নারীকে নিজের বাড়িতে ডেকে পাঠায়। তারপর অপশক্তি তাড়িয়ে দেওয়ার কথা বলে ওই নারীকে ধর্ষণ করে।

বাধ্য করে বিকৃত যৌনাচারে। জানায়, অপশক্তিকে বিতাড়িত করতে এমন করা আবশ্যক। ওই বছরেরই ২২ নভেম্বর ওই তান্ত্রিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন ওই নারী। তারপরই গ্রেফতার হয় সে। মাত্র কয়েক মাসের মধ্যেই তাকে দোষী সাব্যস্ত করে সাজা ঘোষণা করেছে আদালত।
তবে মহেশ চন্দ্রর দাবি, সে নির্দোষ। সে জানিয়েছে, ওই নারী স্বামী তার কাছ থেকে ৩৫ হাজার টাকা ধার নিয়েছিল। কিন্তু ফেরত দেয়নি। মহেশের দাবি, সে ওই টাকা ফেরত চেয়েছিল বলেই তাকে এ ভাবে ফাঁসানো হয়েছে। -এবেলা






মন্তব্য চালু নেই