মেইন ম্যেনু

লাশ হয়ে ফিরল নেপালের ১৩ ভবিষ্যত ডাক্তার

বাবা মায়ের স্বপ্ন পূরণ করে এমবিবিএস পরীক্ষা শেষে দেশে ফিরছিল ওরা ১৩ জন। নেপালের কাঠমান্ডুতে বিধ্বস্ত হওয়া ইউএস বাংলার উড়োজাহাজটিতেই ছিল নেপাল থেকে বাংলাদেশের সিলেট জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজে পড়তে আসা ১৩ শিক্ষার্থী। তারা সবাই ফাইনাল পরীক্ষা শেষ করে বাড়ি ফিরছিল। পরীক্ষা শেষ করে বাড়ি যাওয়ার পথে সবাই লাশ হয়ে গেলো একটি দুর্ঘটনায়। ইন্টার্নি শেষ করলেই তারা ডাক্তার হয়ে নেপাল ফিরতেন।

কলেজের একটি সূত্র জানায়, কলেজের এমবিবিএস ফাইনাল পরীক্ষা শেষ করে তারা দুই মাসের ছুটিতে নিজেদের দেশে যাচ্ছিল। তারা সবাই ১৯তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে ১১জন মেয়ে এবং দুজন ছেলে।

রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজের এই শিক্ষার্থীরা হচ্ছে সঞ্জয় পৌডেল, সঞ্জয়া মহারজন, নেগা মহারজন, অঞ্জলি শ্রেষ্ঠ, পূর্ণিমা লোহানি, শ্রেতা থাপা, মিলি মহারজন, শর্মা শ্রেষ্ঠ, আলজিরা বারাল, চুরু বারাল, শামিরা বেনজারখার, আশ্রা শখিয়া ও প্রিঞ্চি ধনি।

জালালাবাদ রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের ১৩ শিক্ষার্থী হতাহতের ঘটনায় ৩ দিনের শোক কর্মসূচী ঘোষণা করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। শোকের অংশ হিসেবে মঙ্গলবার ক্লাস পরীক্ষা বন্ধ থাকবে। তিনদিন কলেজের পতাকা অর্ধনিমিত রাখা হবে ও কালো ব্যাজ ধারণ করা হবে।

সিলেট নগরের পাঠানটুলা এলাকায় তারাপুর চা-বাগানে অবস্থিত মেডিকেল কলেজটিতে ২৫০ জন নেপালি ছাত্রছাত্রী রয়েছে বলে জানিয়েছর কলেজ কর্তৃৃৃৃপক্ষ।



মন্তব্য চালু নেই